বাংলাদেশের ক্রিকেট অঙ্গনে নিরবে বডি সেমিংয়ের শিকার হচ্ছেন রাকিম কর্নওয়াল। সেসব অবশ্য কানে যাচ্ছে না ‘বিগ ম্যান’ খ্যাত উইন্ডিজ স্পিনারের। বরং করে চলেছেন নিজের কাজটা। ঢাকা টেস্টে যেমন তুলে নিয়েছেন টাইগারদের পাঁচ উইকেট। তার ঘূর্ণিতে সিরিজের শেষ টেস্টে তৃতীয়দিন শেষে এগিয়েই থাকল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। তবে চতুর্থদিন রোমাঞ্চ উপহার দেওয়ার সুযোগ আছে বাংলাদেশের সামনেও।

তৃতীয়দিন শেষে দ্বিতীয় ইনিংস থেকে ৩ উইকেট হারিয়ে ৪১ রান তুলেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। প্রথম ইনিংসে পাওয়া ১১৩ রানের লিডের সুবাদে মোট লিড দাঁড়িয়েছে ১৫৪ রানে। দলকে ভরসা দেওয়ার জন্য এখনও আছেন এনক্রুমাহ বোনার, কাইল ময়েসলি এবং জসুয়া ডি সিলভারা। আবার শুরুর তিন উইকেট নিয়ে টাইগার স্পিন ত্রয়ীও পেয়েছেন ছন্দ। 

এর আগে প্রথম ইনিংসে ৪০৯ রান তোলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জবাবে ২৯৬ রানে প্রথম ইনিংস থামে বাংলাদেশের। দলের হয়ে লিটন দাস ৭১ রানের ইনিংস খেলেন। তার সঙ্গে থাকা মেহেদি মিরাজ ৫৭ রানে আউট হন। তাদের জুটি থেকে আসে ১২৬ রান। ওই জুটিই ওয়েস্ট ইন্ডিজের দেওয়া লিড কমিয়ে আনে।  আবার ওই জুটি ভাঙার পর আশাহত হয়েছে বাংলাদেশ।

এর আগে দ্বিতীয়দিন স্বাগতিক ওপেনার তামিম ইকবাল ৪৪ রান করেন। মুমিনুলের ব্যাট থেকে আসে ২১ রান।  তৃতীয়দিন সকালে মোহাম্মদ মিঠুন ১৫ এবং মুশফিকুর রহিম ৫৪ রান করে ফেরেন।

এর আগে টস জিতে ব্যাট করা ওয়েস্ট ইন্ডিজের পক্ষে সর্বোচ্চ ৯২ রান করেন দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নামা জসুয়া ডি সিলভা। পেসার আলজারি জোসেপ ৮২ রানের দারুণ ইনিংস খেলেন।  তার আগে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে ৯০ রান আসে এনক্রুমাহ বোনারের ব্যাট থেকে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ বড় রান হওয়ার পেছনে অবদান রাখেন দুই ওপেনার ক্রেগ ব্রাথওয়েট ও জোহান ক্যাম্পবেল। তারা শুরুতে ৬৬ রান যোগ করেন। অধিনায়ক ব্রেথওয়েট ৪৭ ও ক্যাম্পবেল করেন ৩৬ রান। বাংলাদেশের হয়ে প্রথম ইনিংসে চারটি করে উইকেট নেন আবু জায়েদ ও তাইজুল ইসলাম। ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে পাঁচ উইকেট নিয়েছেন কর্নওয়াল।

মন্তব্য করুন