কদিন আগেই ঘরের মাঠে টেস্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হোয়াইটওয়াশ হয়েছে টানা পরাজয়ের বৃত্তে আটকে থাকা বাংলাদেশ। ওই স্মৃতি নিয়ে বাংলাদেশ দলের পরের মিশন হলো নিউজিল্যান্ড সফর, এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট। তবে দুই সিরিজেই থাকছেন না অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। পারিবারিক কারণে নিউজিল্যান্ড সফর থেকে ছুটি নিয়েছেন আর আইপিএলের জন্য থাকছেন না শ্রীলঙ্কা সফরে। আর এ নিয়েই হতাশ হয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

সোমবার নিউজিল্যান্ড সফরের আগে সিনিয়র খেলোয়াড়, বোর্ড কর্মকর্তা ও কোচদের সঙ্গে বৈঠকের পর মিরপুরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন পাপন। এ সময় তিনি জানান, ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার পর এমন দু’টি গুরুত্বপূর্ণ সিরিজে সাকিবের না থাকার ব্যাপারে আমি হতাশ হয়েছি।

পাপন বলেন, ‘এর আগেও এমন হয়েছে। আমাদের অবস্থান পরিষ্কার, আমরা কাউকে জোর করে খেলাবো না। কেউ যদি খেলতে না চায়, তাহলে সে খেলবে না। আমরা চাই নিজেদের সিদ্ধান্ত ওরা নিজেরা নিক।’

তিনি আরও বলেন, ‘এই ব্যাপারে আমরা আলোচনা করেছি। এই ব্যাপারে আমরা এখন তাদের সঙ্গে একটা চুক্তিতে যাবো। আমাদের কিন্তু আগের চুক্তি শেষ হয়েছে। এখন পর্যন্ত আমরা নতুন চুক্তি করিনি। এই চুক্তিগুলোতে আরও কিছু নতুন বিষয় যুক্ত হবে। ওখানে সব পরিস্কার লেখা থাকবে। কে কোন ফরম্যাটে খেলতে চায়, তা তাদেরকে বলতে হবে। এটাও জানতে হবে, তাদের যদি ঐ সময় অন্য কোনো জায়গায় অন্য কিছু থাকে তাহলে তারা কি জাতীয় দলে খেলবে নাকি ওখানে, তা জানাতে হবে। কারণ এই চুক্তিতে যে সই করবে তাকে কিন্তু আমরা আর যেতে দেবো না। এখন ওপেন। এতদিন ছিল এটা ব্যক্তিগতভাবে। তবে এখন আমরা এটা কাগজে-কলমে লিখিতভাবে নিয়ে নেবো। সুতরাং এখানে কারও কিছু বলার থাকবে না।’

এছাড়া বিসিবি সভাপতি পাপন জানান, এখন থেকে যে কোনো সফরে বোর্ডের কর্মকর্তা, সেটা জালাল ইউনূস হতে পারে বা খালেদ মাহমুদ সুজন খেলোয়াড়দের সঙ্গে থাকবেন।