ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের অস্ট্রেলিয়ান লেগ স্পিনার ফাওয়াদ আহমেদ করোনা আক্রান্ত হওয়ায় কোয়েটা গ্লাডিয়েটর্সের বিপক্ষে ম্যাচটি স্থগিত হয়ে যায়। এরপর আবার পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) অংশ নেওয়া দুই বিদেশি ক্রিকেটার এবং একজন সাপোর্ট স্টাফ করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

আক্রান্ত ওই নতুন দুই ক্রিকেটারের একজন ইসলামাবাদ ইউনাইটেডর। তবে এবার আর ম্যাচ স্থগিত করছে না কর্তৃপক্ষ। বরং নতুন করে ২৪৪ জনের করোনা শনাক্ত করার পরে ওই তিনজন ছাড়া কেউ আক্রান্ত না হওয়ায় ম্যাচটি পূর্ব নির্ধারিত সময় অনুযায়ী হবে।

পিসিবির মিডিয়া ডাইরেক্টর সামি-উল হাসান বার্নি জানিয়েছেন, ফ্র্যাঞ্চাইজি এবং টিম মালিকদের সঙ্গে ভার্চুয়াল সভা হয়েছে তাদের। সেখানে সবাইকে সার্বিক সহায়তার ব্যাপারে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সবাইকে অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বনের কথাও বলা হয়েছে। প্রতি চারদিন পরদিন পিসিআর টেস্ট হবে বলেও নিশ্চিত করা হয়েছে।

পিএসএলে অংশ নেওয়া ক্রিকেটার এবং সাপোর্ট স্টাফরা ঠিক মতো বায়ো-বাবল মানছেন না বলেও অভিযোগ আছে। এ নিয়ে সামি উল বলেন, 'বায়ো-বাবল অক্ষরে অক্ষরে পালন করা কঠিন। বাস্কেটবল, ফর্মুলা ওয়ান কিংবা অস্ট্রেলিয়া ওপেনেও এমনটার (বাবল ভাঙার) নজির আছে। তার মানে আমাদের বায়ো-বাবল দুর্বল এমন নয়।' তিনি সকলকে নিয়ম মেনে চলার আহ্বান করেন।

মন্তব্য করুন