টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের জন্য ভারত জুনের শেষে এশিয়া কাপ খেলবে  না বলে দাবি করেছিলেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) চেয়ারম্যান এহসান মানি। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) সেই দাবি প্রত্যাখান করেছে। জানিয়ে দিয়েছে, মূল ক্রিকেটারদের পাওয়া না গেলে অন্যদের শ্রীলংকায় এশিয়া কাপের জন্য পাঠাবে তারা।

অথচ এখন পাকিস্তানই এশিয়া কাপ ‘অনিশ্চিত’ করে তুলছে। কারণ জুনে আবার করোনার কারণে স্থগিত হয়ে যাওয়া পাকিস্তান সুপার লিগ (পিএসএল) আয়োজন করতে চায় তারা। পিসিবির পক্ষ থেকে বিবৃতি দিয়ে জানানো হয়েছে, ছয় ফ্র্যাঞ্চাইজি মালিক ও পিসিবি এক ভার্চুয়াল সভায় জুনে পিএসএল ফেরানোর ব্যাপারে সম্মত হয়েছে।

পিসিবির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, মার্চ-এপ্রিল এবং জুলাই-সেপ্টেম্বরে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা ব্যস্ত থাকবেন, সেজন্য জুনই পিএসএলের জন্য সেরা সময়। এছাড়া ম্যাচগুলো লাহোর থেকে সরিয়ে করাচিতে আয়োজন করার কথাও বলা হয়েছে। কারণ জুনে পাকিস্তানে থাকে খুবই গরম। যে কারণে ২০০৮ এশিয়া কাপ ভিন্ন জুনে ঘরের মাঠে তারা কোন সিরিজ খেলেনি। তবে এবার খেলবে পিএসএল।

পিসিবির পক্ষ থেকে আরও বলা হয়েছে, ১৩ মে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজ শেষ হবে পাকিস্তানের। ২৬ জুন আবার ইংল্যান্ড সফরের জন্য যাবে তারা। এর মধ্যে থাকা সময়ে পিএসএলের ২০ ম্যাচ আয়োজনের পরিকল্পনা হয়েছে। বাকি থাকা ওই ম্যাচগুলো শেষ করতে অন্তত দুই সপ্তাহ সময় লাগবে বলেও জানানো হয়েছে।

জিম্বাবুয়ে সিরিজ শেষ ও ইংল্যান্ড সফরে যাওয়ার আগে আছে এশিয়া কাপ। কিন্তু গত বছরের স্থগিত হয়ে যাওয়া ওই টুর্নামেন্টের ব্যাপারে কিছু বলেনি পিসিবি। শুধু জানিয়েছে, করোনার কারণে কথা দেওয়া সব সিরিজ আয়োজন সম্ভব হবে না। গত বছর আইপিএলের কারণে এশিয়া কাপ আয়োজন করা হয়নি বলে অভিযোগ আছে। এবার কি পাকিস্তান সেই পথে হাঁটছে?