চলতি মৌসুম শেষে ফ্রি এজেন্ট হয়ে যাবেন লিওনেল মেসি। তিনি তাই বার্সেলোনা ছাড়তে পারেন বলে জোর গুঞ্জন। হুয়ান লাপোর্তা দ্বিতীয় মেয়াদে কাতালান ক্লাবটির কোচ হয়ে আসায় অবশ্য ক্যাম্প ন্যুতে আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকারের থাকার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে। তবে অনেকে মনে করছেন, মৌসুম শেষে নতুন পথেই হাঁটবেন মেসি।

রিয়াল মাদ্রিদ অধিনায়ক সের্গিও রামোসের কাছে তাই জানতে চাওয়া হয়েছিল সুযোগ হলে শত্রু দলের সেরা ফুটবলারকে দলে নেবেন কিনা। জবাবে লস ব্লাঙ্কোস ডিফেন্ডার সাদরে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন লিওকে, ‘আমি তাকে উচ্ছ্বাসের সঙ্গে রিয়ালে স্বাগতম জানাবো।’

সংবাদ মাধ্যম মার্কাকে স্পেন ডিফেন্ডার বলেন (হেঁসে), ‘আমি কয়েক সপ্তাহের জন্য তাকে আমার বাড়িতে থাকতেও দেব। লিও যখন সেরা ফর্মে ছিলেন তার বিপক্ষে আমাদের অসুবিধায় পড়তে হয়েছে। সুতরাং তার মুখোমুখি হতে হবে না। ভালোই হবে। তিনি এলে আমরা আরও সাফল্য পাবো- এটা বলার দরকার পড়ে না।’

চলতি মৌসুম শেষে মেসির যেমন বার্সার সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হচ্ছে, তেমনি ফ্রি এজেন্ট হয়ে যাচ্ছেন সের্গিও রামোসও। রিয়াল তাকে নতুন করে এক মৌসুম থাকার জন্য প্রস্তাব করছে। কিন্তু রামোস তাতে রাজি নন। তিনিও তাই মৌসুম শেষে যেতে পারেন অন্য কোথাও।

বার্সায় যাবেন? এমন প্রশ্নে রামোস অবশ্য বেঁকে বসেছেন, ‘না, কোনো সুযোগ নেই। আমার লাপোর্তার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক। তিনি আমাকে স্নেহ করেন। কিন্তু কিছু কিছু জিনিস আছে, যা শুধু অর্থ দিয়ে আপনি পাবেন না।  যেমন জাভি হার্নান্দেজ কিংবা জেরার্ড পিকেকে রিয়ালে আনতে পারবেন না।’

এ সময় রামোস কথা বলেছেন আরও অনেক বিষয় নিয়ে। কথা বলেছেন রোনালদোকে নিয়ে। জানিয়েছেন, সিআরসেভেনের সঙ্গে তার সম্পর্ক আজীবনের। এছাড়া সময়ের সেরা দুই তারকা কিলিয়ান এমবাপ্পে এবং আর্লিং হ্যালন্ডকে নিয়েও কথা বলতে হয়েছে তাকে।

রামোস জানিয়েছেন, তিনি দলে দু’জনকেই চান। তবে আর্থিক দিক বিবেচনা করে হ্যালন্ডকে দলে পাওয়া সহজ। তিনি তাই খেলোয়াড় কেনার দায়িত্বে থাকলে বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের নরওয়েজিয়ান স্ট্রাইকারকে নিয়ে আসতেন। এমবাপ্পেকে কেনা অনেক অর্থের ব্যাপার। তাকে দলে পাওয়া তাই কঠিন বলেও উল্লেখ করেন রামোস।