আবারও দারুণ বোলিং করলেন রিতু মনি ও নাহিদা আক্তার। তাদের সঙ্গে জ্বলে উঠেছিলেন সিরিজের প্রথমবারের মতো সুযোগ পাওয়া রাবেয়া খান। ত্রয়ীর দারুণ বোলিংয়ে তৃতীয় ওয়ানডেতে মাত্র ৯২ রানে গুটিয়ে গেছে দক্ষিণ আফ্রিকা ইমার্জিং নারী দল। জবাব দিতে নেমে ২২ ওভার হাতে রেখেই ৪ উইকেট খুইয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় বাংলাদেশ ইমার্জিং নারী দল। ৬ উইকেটের এ জয়ে দুই ম্যাচ হাতে রেখে ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতে নিলো স্বাগতিকরা।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত এ সিরিজের আগের দুই ম্যাচেও বাংলাদেশের বোলারদের দাপট ছিল। তবে বৃহস্পতিবার নিজেদের ছাপিয়ে গেছেন স্বাগতিক বোলাররা। প্রথম ম্যাচে ১৪১ ও দ্বিতীয় ম্যাচে ১৯৬ রান তুলেছিল সফরকারীরা। 

কিন্তু এদিন স্বাগতিকদের বোলিং তোপে একশও করতে পারেনি তারা। টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে অত্যন্ত সতর্কতার সঙ্গে শুরু করেছিল প্রোটিয়ারা নারীরা। আটোসাটো লাইন-লেন্থে বোলিং করা বাংলাদেশের মেয়েরা সাফল্যের দেখা পায় নবম ওভারে। ওপেনার আন্দ্রে স্টেইনকে বোল্ড করে দেন বাঁহাতি স্পিনার নহিদা। পরের ওভারে জোড়া আঘাত হানেন মিডিয়াম পেসার রিতু মনি। মাত্র দুই ওভারের মধ্যে তিন উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় প্রোটিয়ারা। সেখান থেকে আর বের হতে পারেনি তারা। মাঝে রাবেয়া খানও জোড়া আঘাত হানলে একশর নীচে গুটিয়ে যায় তারা। রিতু মনি, নাহিদা আক্তার ও রাবেয়া খান, প্রত্যেক্যেই ৩টি করে উইকেট দখল করেন। এরমধ্যে ম্যাচসেরা হয়েছেন রাবেয়া। উইকেট না পেলেও অত্যন্ত মিতব্যয়ী বোলিং করেছেন স্পিনার সালমা খাতুন।

ছোটো এ লক্ষ্যে পেছনে ছুটতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারিয়ে বসেছিল বাংলাদেশ। আগের ম্যাচে সেঞ্চুরি করা নিগার সুলতানা জ্যোতিও দ্রুত ফিরে যান। তবে ওপেনার মোর্শেদা খাতুন শক্ত হাতে ব্যাট চালিয়ে দলকে জয়ের কাছাকাছি পৌঁছে দেন। তবে অল্পের জন্য হাফ সেঞ্চুরি মিস করেন তিনি।