কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় কারও অপরাধ থেকে থাকলে তাকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।বুধবার দুপুরে ধানমণ্ডির বাসভবনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, 'আইন অনুযায়ী আইন চলবে। যে অপরাধী হয়, তাকে আইনের মুখোমুখি হতে হবে, বিচারের মুখোমুখি হতে হবে।' তিনি বলেন, 'বিষয়টি যেহেতু তদন্তাধীন, তা শেষ হলেই এ বিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।'

সোমবার রাতে গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে গলায় ওড়না প্যাঁচানো অবস্থায় মোসারাত জাহান মুনিয়ার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। 

এ ঘটনায় তার বোন নুসরাত জাহান তানিয়া গুলশান থানায় 'আত্মহত্যায় প্ররোচনা'র অভিযোগে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরকে একমাত্র আসামি করা হয়েছে। পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত মঙ্গলবার আনভীরের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন।

মুনিয়া রাজধানীর একটি কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। 

স্বজন ও পুলিশ জানিয়েছে, মুনিয়া দুই মাস ধরে গুলশানের ফ্ল্যাটটিতে থাকতেন। মাসে ভাড়া এক লাখ টাকা, সার্ভিস চার্জ হিসেবে আরও ১১ হাজার টাকা খরচ হতো।

পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিশনার সুদীপ কুমার চক্রবর্তী সমকালকে বলেন, লাশ উদ্ধারের পর আলামত হিসেবে মুনিয়ার দুটি মোবাইল ফোন, দুটি ফটো ফ্রেম, সিসিটিভির ফুটেজ ও ছয়টি ডায়েরি জব্দ করা হয়েছে। তিনি আরও বলেন, ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনসহ অন্যান্য আলামত পরীক্ষার প্রতিবেদন পাওয়া গেলে অনেক কিছু পরিষ্কার হবে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের প্রসিকিউশন বিভাগের উপকমিশনার জাফর হোসেন বলেন, আত্মহত্যায় প্ররোচনার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আসামি সায়েম সোবহান আনভীরের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে আবেদন করেছিলেন। আদালত সেই আবেদন মঞ্জুর করেছেন।