আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বললেন শ্রীলঙ্কান অলরাউন্ডার থিসারা পেরেরা। আর কদিন পরেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এছাড়া রয়েছে তিন বছরে তিনটি বৈশ্বিক আসর। এর মধ্যেই হুট করে সবাইকে অবাক করে দিয়ে অবসরের কথা জানালেন থিসারা।

সোমবার শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তরুণ ক্রিকেটারদের সুযোগ করে দিতে অবসর নিয়েছেন থিসারা। গত মার্চে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে হয়ে থাকল দেশের হয়ে তার শেষ ম্যাচ। যার ফলে আসন্ন বাংলাদেশ ও ইংল্যন্ডের মধ্যকার ওয়ানডে সফরের দল থেকে বেশ কয়েকজন সিনিয়র ক্রিকেটার বাদ পড়তে যাচ্ছেন।

তবে ৩২ বছর বয়সী পেস বোলার অলরাউন্ডার নিশ্চিত করেছেন, ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেটে খেলা চালিয়ে যাবেন তিনি।

২০০৯ সালে ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পথচলা শুরু হয় থিসারার। এই সংস্করণে ১৬৬ ম্যাচ খেলে ১৭৫ উইকেট নিয়েছেন তিনি, গড় ৩২.৭৯। এক সেঞ্চুরি ও ১০ ফিফটিতে রান করেছেন দুই হাজার ৩৩৮।

দ্রুত রান তোলার সামর্থ্য ছিল থিসারার। স্ট্রাইক রেটের দিক থেকে জায়গা করে নিয়েছেন সেরাদের তালিকায়। তার ১১২.০৮ স্ট্রাইক রেট ওয়ানডেতে অন্তত দুই হাজার রান করেছেন এমন ব্যাটসম্যানদের মধ্যে চতুর্থ সর্বোচ্চ।

ওয়ানডের এক বছর পর টি-টোয়েন্টিতে অভিষেক হয় থিসারার। যেখানে ৮৪ ম্যাচে তার উইকেট ৫১টি। ৩ ফিফটিতে রান করেছেন এক হাজারের উপরে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে গত মার্চে খেলেছেন এই সংস্করণে শেষ ম্যাচ। টি-টোয়েন্টিতে নয়টি ম্যাচে নেতৃত্ব দিয়েছেন দেশকে, ওয়ানডেতে তিনটি।

সীমিত ওভারের মতো লম্বা হয়নি থিসারার টেস্ট ক্যারিয়ার। ২০১১ সালে অভিষেকের পর খেলেছেন কেবল ৬টি ম্যাচ। শেষ ম্যাচ ২০১২ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে। ওই ম্যাচে ব্যাট-বলে বেশ ভালো করলেও সুযোগ পাননি আর।

হতাশায় ২০১৬ সালে ২৮ বছর বয়সে লাল বলের ক্রিকেটকে বিদায় জানান থিসারা। এবার ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকেও অবসর নিয়ে তিনি ১২ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার থেকে অবসর নিলেন। সূত্র: ইএসপিএনক্রিকইনফো

মন্তব্য করুন