শ্রীলঙ্কা থেকে চার্টার্ড ফ্লাইটে মঙ্গলবার বিকেলে দেশে ফিরে ক্রিকেটাররা যে যার বাসায় গেছেন। জাতীয় দলের তিন বিদেশি কোচ উঠেছেন হোটেলে। সরকারের সর্বশেষ প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী শ্রীলঙ্কা থেকে ফিরলে ১৪ দিনের হোম কোয়ারেন্টাইন করার নিয়ম।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নিয়ম মেনেই আপাতত মুমিনুলদের বাসায় থাকতে বলা হয়েছে বিসিবি থেকে। তবে কভিড টেস্টে দু'বার নেগেটিভ হলে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের জন্য কোয়ারেন্টাইন শিথিল করা হতে পারে। তিন দিন পর বাসার চলাচলে অনুমতি পেতে পারেন তারা।

বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী জানান, ক্রিকেটারদের কোয়ারেন্টাইন শিথিল করার ব্যাপারে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। এক-দু'দিনের ভেতরেই সিদ্ধান্ত জানা যেতে পারে।

এপ্রিলে নিউজিল্যান্ড থেকে ফিরে তিন দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে ছিলেন মাহমুদুল্লাহরা। শ্রীলঙ্কা গিয়ে মুমিনুলদের আইসোলেশন করতে হয় তিন দিন। ক্যান্ডিতে বায়োসিকিউর বাবলে থাকায় টাইগার টেস্ট স্কোয়াডের সদস্যদেরও অন্যদের মতো ১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইনের প্রয়োজন হবে না। এ ছাড়া ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইন করতে হলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রস্তুতি নেওয়া হবে না তামিমদের।

এ ব্যাপারে সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, 'ক্রিকেটার, কোচিং ও সাপোর্ট স্টাফরা আপাতত বাসায় থাকবে। আশা করি ঈদের পর সবাই অনুশীল করবে। ওয়ানডে দলের যে ক্যাম্প শুরু হয়েছে সেটা চলবে ৮ মে পর্যন্ত। তাই এ মুহূর্তে তাড়াহুড়ো করার প্রয়োজন হচ্ছে না।'

দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে ২১ সদস্যের স্কোয়াড নিয়ে ১২ এপ্রিল শ্রীলঙ্কা গিয়েছিল বাংলাদেশ দল। সফর শেষ করে খেলোয়াড়রা মঙ্গলবার ফিরলেও কোচিং স্টাফের সবাই ঢাকায় ফেরেননি। প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো, ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক ও ব্যাটিং কোচ জন লুইস দলের সঙ্গে ফিরেছেন। পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন, ট্রেনার নিক লি ইংল্যান্ডে আর ফিজিও জুলিয়ান ক্যালেফাতো ইতালিতে ফিরে গেছেন। ছুটি কাটিয়ে তারা ফিরবেন ঈদের পর।

মন্তব্য করুন