অন্তত চারে হলেও থাকা চাই- এমনটাই এখন ভাবছে জুভেন্তাস। কেননা পরের মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলতে হলে সিরি-এ টেবিলে এক থেকে চারে থাকতে হবে তাদের। সে নিয়ম ঠিকঠাক রাখতে যেন কোমর বেঁধে নামলেন পিরলোর শিষ্যরা। সর্বশেষ শনিবার রাতে ঘরের মাঠে চ্যাম্পিয়ন ইন্টারকে ৩-২ গোলে হারিয়ে সেই আশা জিইয়ে রাখলেন রোনালদোরা।

এ দিন অ্যালিয়াঞ্জ অ্যারেনায় শুরুতেই জুভদের এগিয়ে দেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ম্যাচের ২৪তম মিনিটে তার গোলেই লিড নেয় স্বাগতিকরা। যদিও লিড বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি তারা। ৩৫তম মিনিটে রোমেলু লুকাকোর সফল স্পটকিকে সমতায় ফেরে সিরি-এ'র শিরোপাজয়ীরা। তবে বিরতিতে যাওয়ার আগে ফের এগিয়ে যায় জুভেন্তাস। এবার ডি বপের বাইরে থেকে ডান পায়ের জোরালো শটে ইন্টারের জাল ভেদ করেন হুয়ান কুয়াদ্রাদো। এরপর খানিকটা সময় চলে জুভেন্তাসের আধিপত্য। ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ধরে রাখে তারা। অন্যদিকে ইন্টারও পিছু হটেনি। নিয়মিত চাপ সৃষ্টি করে। যার সুবাদে ফাউল করে বসেন জুভেন্তাসের রদ্রিগো।

আগে একবার হলুদ কার্ডের পর ৫৫তম মিনিটে বাজে ট্যাকেলে চোখ এড়ায়নি রেফারির। ফলে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। এরপর দলজনের দলে পরিণত হয় জুভেন্তাস। এই সুযোগ কাজে লাগানোর বেশ চেষ্টা চালায় ইন্টার। তবে নিজেরা না পারলেও জুভদের ভুলে সমতার ফুল ফোটে অতিথিদের। ৮৩তম মিনিটে সুইসাইড গোল করে বসেন জুভদের চিয়েল্লিনি। একে তো দশজনের দল তার ওপর আত্মঘাতী গোল- যেন জুভদের কাটা গায়ে নুনের ছিটা লাগল। অবশ্য গতি আর আত্মবিশ্বাসেও তখনও চিড় ধরেনি ইতালিয়ান জায়ান্টদের। যার ফলও আনে দ্রুত। ৮৮তম মিনিটে সেই কুয়াদ্রাদো পেনাল্টি থেকে জুভেন্তাসকে তৃতীয় গোল উপহার দেন। শেষ দিকে আক্রমণের ধার বাড়িয়েও গোল শোধ করতে পারেনি ইন্টার। উল্টো তাদের মার্সেলো লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন। এই জয়ে শেষ চারের আশা বাঁচিয়ে রাখতে পেরে আনন্দিত জুভ কোচ পিরলো। ম্যাচের পর সেই অনুভূতির কথাই বললেন, 'জয়টা আমাদের জন্য দরকার ছিল। এই জয়ে আশাটা জেগে উঠেছে আমাদের। যদিও আমরা কেবল শেষ চারে থাকার কথা চিন্তা করেই খেলছি না।'

বিষয় : জুভেন্তাস রোনালদো পিরলো

মন্তব্য করুন