ব্যক্তিগত অনুশীলনে জৈব-সুরক্ষা বলয় ভাঙায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান ও তার দল মোহামেডান।

শুনানিতে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব স্বীকার করেছে জৈব-সুরক্ষা ভাঙার কথা। তবে এর জন্য কোনো শাস্তি পেতে হয়নি ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটিকে। দুঃখ প্রকাশ করেই বিষয়টি শেষ করেছে তারা।

বুধবার এক ভিডিও বার্তায় ক্রিকেট কমিটি অব ঢাকা মেট্রোপলিসের (সিসিডিএম) চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গত ৫ জুন এক বিবৃতিতে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের অনুশীলনে জৈব-সুরক্ষা বলয় ভাঙার অভিযোগে তদন্ত শুরু করার কথা জানায় ঢাকার ক্লাব ক্রিকেট পরিচালনাকারী সংস্থা সিসিডিএম। গত মঙ্গলবার এর শুনানিও হয়। ভিডিও বার্তায় কাজী ইনাম জানান, সুরক্ষা বলয় ভাঙার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছে মোহামেডান।

সিসিডিএমের চেয়ারম্যান কাজী ইনাম আহমেদ বলেন, ৮ জুন আমরা বিসিবি ও সিসিডিএম থেকে একটি হিয়ারিংয়ের আয়োজন করেছি। আপনারা অবগত আছেন সিসিডিএমের অধীনে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ আয়োজিত হচ্ছে, সেখানে মোহামেডানের অনুশীলনে জৈব-সরক্ষা বলয় ভেঙেছে। বিসিবির পরিচালক জালাল ইউনুস, প্রধান নির্বাহী, সিসিডিএমের সদস্য সচিব ও মোহামেডানের ম্যানেজম্যান্ট ও সাকিব আল হাসান উপস্থিত ছিলেন। অপ্র্যতাশিতভাবে যেটা হয়েছে, এটা নিয়ে তারাও সতর্ক, তারা দুঃখ প্রকাশ করেছে। জৈব-সুরক্ষা বলয় ঠিক রাখার জন্য বিসিবি ও সিসিডিএম থেকে নোটিশও দেওয়া হয়েছে। আশা করছি টুর্নামেন্টটি আমরা ভালোভাবে শেষ করতে পারব।

ঘটনাটির সূত্রপাত ঘটে গত শুক্রবার। দলের কোনো অনুশীলন না থাকলেও ব্যক্তিগতভাবে নিজেকে ঝালিয়ে নিতে মাঠে যান সাকিব। তিনি যখন ইনডোরে ব্যাটিং অনুশীলন করছিলেন, তখনই শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের ইনডোরে ঢুকে পড়েন এক ব্যক্তি।

নিরাপত্তার দায়িত্বে যারা ছিলেন, তারাও ওই ব্যক্তিকে আটকাননি। অথচ টুর্নামেন্ট চলাকালীন স্টেডিয়াম, একাডেমি মাঠ ও ইনডোর— সবগুলোই জৈব-সুরক্ষ বলয়ের মধ্যে পড়ে। তাহলে কীভাবে বাইরের কেউ প্রবেশ করল? এ বিষয় নিয়েই তদন্ত করে মোহামেডানকে সতর্ক করেছে বিসিবি ও সিসিডিএ।

মন্তব্য করুন