নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরওয়াপদা ইউনিয়নে পূর্ব বিরোধের জের ধরে কামাল উদ্দিন (৩৫) নামে এক প্রবাসীকে কুপিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। এ সময় ওই প্রবাসীর ব্যবহূত মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে হামলাকারীরা। 

বুধবার দুপুরে স্থানীয় চরকাজী মোখলেছ গ্রামের একটি দোকানে চা পান করার সময় তার ওপর হামলা হয়। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নেয়। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পথে রাত ১০টার দিকে কুমিল্লায় তিনি মারা যান।

নিহত কামাল উদ্দিন ওরফে কোপা কামাল উপজেলার চরওয়াপদা ইউনিয়নের চরকাজী মোখলেস গ্রামের ওবায়দুল হক ওদু মিয়ার ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কামালের পরিবারের সঙ্গে জমি নিয়ে একই এলাকার সফিউল্যার পরিবারের বিরোধ চলছিল।

নিহতের ছোট ভাই বেলা উদ্দিন জানান, বুধবার দুপুরে মালেকের দোকানে বসে চা পান করছিলেন কামাল। এ সময় পূর্বশত্রুতার জের ধরে এলাকার সফিউল্যার ছেলে সন্ত্রাসী মাঈন উদ্দিন, রফিক, ইসমাইল ও রুহুল আমিনের ছেলে আবুল কালামসহ কয়েকজন পেছন থেকে হামলা চালিয়ে কামালকে এলোপাতাড়ি কুুপয়ে জখম করে এবং তার ব্যবহূত মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। কামাল মাটিতে লুটিয়ে পড়লে স্ট্ক্রুড্রাইভার দিয়ে তার চোখে আঘাত করে হামলাকারী রফিক। কামালকে বাঁচাতে এগিয়ে এলে কালু মিয়া নামের আরেকজনকেও কুপিয়ে আহত করে হামলাকারীরা।

চর মোখলেছ গ্রামের একাধিক ব্যক্তি অভিযোগ করে বলেন, হামলাকারীরা এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। তাদের অত্যাচারে এলাকার লোকজন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। তাদের অপকর্মের প্রতিবাদ করলে হামলার শিকার হতে হয়।

চরজব্বার থানার ওসি মো. জিয়াউল হক বলেন, কামাল প্রবাস থেকে ফিরে প্রতিপক্ষের লোকজনকে কুপিয়ে জখম করেছিলেন। ওই ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে ২৪ দিন জেল খাটেন। ৫-৬ দিন আগে তিনি জামিনে মুক্তি পান। প্রতিপক্ষের লোকজনের হামলায় তার মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে ইসমাইল ও আবুল কালাম নামে দু'জনকে আটক করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে হত্যা মামলার প্রস্তুতি চলছে।

বিষয় : ওমান প্রবাসী কুপিয়ে হত্যা নোয়াখালী

মন্তব্য করুন