টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে এখন বাংলাদেশের দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরিয়ান হাসানুজ্জামান। সোমবার বিকেএসপিতে ৪৮ বলে ১১টি চার ও ৭ ছক্কায় ১০৫ রান করে এ রেকর্ড গড়েন তিনি। এদিন বিকেএসপিতে অনুষ্ঠিত রেলিগেশন লিগের প্রথম ম্যাচটিতে মুখোমুখি হয় ওল্ড ডিওএইচএস ও পারটেক্স।

টস জিতে আগে ব্যাটিং করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১৯৯ রান সংগ্রহ করে ওল্ড ডিওএইচএস। এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে এটিই সর্বোচ্চ ইনিংস। রাকিন আহমেদ অপরাজিত থাকেন ৯২ রানে।

২০০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই টপ অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যানকে হারায় পারটেক্স। এরপর নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকা পারটেক্সকে টেনে তোলার চেষ্টা করেন হাসানুজ্জামান। 

এর আগে ঘরোয়া ক্রিকেটে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে দ্রুততম সেঞ্চুরি তোলার রেকর্ডটি ছিল যুববিশ্বকাপজয়ী ব্যাটসম্যান পারভেজ হোসেন ইমনের। সোমবার ৪৮ বলে সেঞ্চুরি করে দ্বিতীয় দ্রুততম সেঞ্চুরিয়ান হয়ে যান হাসানুজ্জামান।

এর আগ পর্যন্ত টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ডটি ছিল তামিমের। ২০১৯ সালে বিপিএল ফাইনালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের হয়ে তামিম ৬১ বলে খেলেছিলেন ১৪১ রানের ইনিংস। সেখানে ৫০ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেছিলেন তিনি। এবার দ্রুততম সেঞ্চুরিতে তামিমকে তিনে নামলেন ৩০ বছর বয়সী হাসানুজ্জামান। তবে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েও দলের পরাজয় আটকাতে পারলেন না হাসানুজ্জামান। ২৩ রানের জয় তুলে নিয়ে মাঠ ছেড়েছে ওল্ড ডিওএইচএস স্পোর্টস ক্লাব।