জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কাল দ্বিতীয় ওয়ানডেতে জিতে এক ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ জয় নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে লিটন দাসের সেঞ্চুরি আর সাকিবের ৫ উইকেট শিকারে ১৫৫ রানের বিশাল জয় দিয়ে সিরিজ শুরু করেছে টাইগাররা। এই জয় আইসিসি সুপার লিগে বাংলাদেশের ২য় অবস্থান আরো সুসংহত করেছে। দ্বিতীয় ম্যাচে জয় পেলে সুপার লিগে ইংল্যান্ডের সাথে ব্যবধান কমবে বাংলাদেশের।

জিম্বাবুয়ের হারারে ক্রিকেট গ্রাউন্ডে ম্যাচটি শুরু হবে আগামীকাল বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ৩০ মিনিটে।

প্রথম ওয়ানডেতে ১৫৫ রানে জিতেও পুরোপুরি তৃপ্তির ঢেকুর তুলতে পারছেন না অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে টপ অর্ডাররা হতাশ করেছে। এক পর্যায়ে স্কোরশিটে ৭৪ উঠতে বাংলাদেশ হারিয়েছে ৪ উইকেট। সেখান থেকে স্কোরটা টেনে নিয়েছে ২৭৬ পর্যন্ত। তবে কোন রান না করেই ফিরে গেছেন তামিম। সেখানে তিন নম্বরে ব্যাট করতে নেমে সাকিব থেমেছেন ১৯ রানে।

সে কারণেই সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে টপ অর্ডারের কাছে রান চান তামিম। নিজে ফিরতে চান রানে, সাকিবের কাছেও বড় স্কোরের প্রত্যাশা তামিমের। বিসিবিকে দেয়া সাক্ষাতকারে তামিম জানান, 'ইমপ্রুভমেন্টের তো কোন শেষ নেই। অবশ্যই কম রানে যদি তিনটা উইকেট পড়ে যায়, সেটা তো আদর্শ হতে পারে না। টপঅর্ডার থেকে যদি আমরা বড় ইনিংস খেলতে পারি, তাহলে দলের উপকারে আসবে। এ ধরনের পরিস্থিতিতে যেন পড়তে না হয়। চেষ্টা করব এ ধরণের সুযোগ আসলে তা নিতে হবে।'

প্রথম ম্যাচে মেহেদি হাসান মিরাজকে মাত্র ৩ ওভার বল করিয়েছেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। বোলিংয়ে কোনো উইকেট পাননি এই টাইগার অলরাউন্ডার। দ্বিতীয় ম্যাচে নিজেকে আরো একবার সেরা প্রমাণ করার সুযোগ থাকছে। এছাড়া দাপুটে বোলিংয়ের মাধ্যমে স্বাগতিকদের চেপে ধরার সক্ষমতা রয়েছে বাংলাদেশি পেসারদেরও। আর সাকিবের ঘূর্ণি তো থাকছেই।

প্রথম ম্যাচ জিতলেও জিম্বাবুয়েকে ছেড়ে কথা বলার কিছুই নেই। কেননা ঘরের মাঠে জিম্বাবুয়ে বরাবরই শক্তিশালী। ব্যাট হাতে ব্রেন্ডন টেলর, রেগিস চাকাভা এবং ওয়েসলি ম্যাধভেরেরা যে কোনো সময়ই ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার যোগ্যতা রাখেন। আর বোলিংয়ে তাদের তো ব্লেসিং মুজারাবানি এবং টেন্ডাই চাতারারা আছেনই। তাই সিরিজ জিততে হলে দলীয় পারফরম্যান্সের কোনো বিকল্প নেই।

বিষয় : বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ে তামিম ইকবাল সাকিব আল হাসান

মন্তব্য করুন