নানা জটিলতায় অন্তত দুই বছর বন্ধ ছিল ময়মনসিংহের একমাত্র সুইমিংপুলটি। অযত্নে পড়ে থাকায় আবর্জনার স্তূপে পরিণত হয় ক্রীড়া সংস্থার এই কেন্দ্রটি। এতে বন্ধ হয়ে পড়ে সাঁতার প্রশিক্ষণ। অবশেষে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন করে পুনরায় চালু করা হয়েছে সুইমিংপুলটি। শুরু হয়েছে তরুণদের সাঁতার প্রশিক্ষণ। বুধবার এখানে সাঁতার প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ এনামুল হক।

নগরায়ণের ফলে ময়মনসিংহ নগরীতে পুকুরের সংখ্যা কমে এখন কার্যত শূন্যের কোটায় নেমেছে। ফলে নগরে বসবাস করা শিশু ও তরুণরা সাঁতার শেখার সুযোগ পাচ্ছে না। নগরীর কাচিঝুলি আউটার স্টেডিয়ামের সুইমিংপুলই সাঁতার শেখার একমাত্র প্রতিষ্ঠান।

বুধবার এখানে তিন মাসব্যাপী সাঁতার প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করা হয়। প্রাথমিকভাবে দুটি ব্যাচে ৩০ জন করে মোট ৬০ জন প্রশিক্ষণার্থী নিয়ে এ সাঁতার প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রশিক্ষণের জন্য প্রতি কোর্সে ভর্তির জন্য দুই হাজার টাকা ও মাসিক ফি ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক বলেন, সাঁতার শুধু ব্যায়ামই নয়, নদীমাতৃক এই দেশে চলাফেরার ক্ষেত্রে জীবন-মৃত্যুরও প্রশ্ন। সাঁতার না জানায় নৌ-দুর্ঘটনার কারণে অনেকেই মারা যান। ঘুরতে গিয়ে সৈকতে কিংবা ঝর্ণার কূপেও মারা যান অনেক তরুণ-তরুণী। তাছাড়া বন্যার সময়ও অনেকে মারা যান। সেজন্য প্রত্যেককে সাঁতার শেখায় উদ্বুদ্ধ করতে হবে। যুবসমাজকে সাঁতারে প্রশিক্ষিত ও সুস্বাস্থ্যের অধিকারী করার জন্যই এ সুইমিংপুলের কার্যক্রম নতুনভাবে শুরু হয়েছে।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ময়মনসিংহ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম বক্তব্য দেন।