বসুন্ধরা কিংসকে লিগ চ্যাম্পিয়ন করলেও এএফসি কাপে ভালো করতে পারেননি কোচ অস্কার ব্রুজোন। গুঞ্জন ওঠে, তার সঙ্গে নতুন মৌসুমের জন্য চুক্তি নবায়ন নাও করতে পারে ক্লাবটি। তবে ক্লাব থেকে জানানো হয়েছে, আগামী মৌসুমেও স্প্যানিশ এ কোচকে দেখা যাবে বসুন্ধরার ডাগআউটে। এমন খবরের মধ্যে নতুন করে এলো ব্রুজোনের বাংলাদেশ জাতীয় দলের কোচ হওয়ার খবরটি। গতকাল জেমি ডেকে অব্যাহতি দিয়ে সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য জাতীয় দলের অন্তর্বর্তীকালীন কোচ হিসেবে ব্রুজোনকে নিয়োগ দিয়েছে বাফুফে। 

এর পরই গুঞ্জন ছড়ায়, বসুন্ধরার সঙ্গে কি সম্পর্ক শেষ করেই জাতীয় দলের কোচ হয়েছেন অস্কার। এমন গুঞ্জনটি উড়ে যায় ন্যাশনাল টিমস কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফে সহসভাপতি কাজী নাবিল আহমেদের মন্তব্যের পর, 'বসুন্ধরার সঙ্গে আলোচনা করেই জাতীয় দলের কোচ হিসেবে অস্কারকে নিয়োগ দিয়েছি আমরা। সামনের কয়েক মাস তো ঘরোয়া লিগের খেলা নেই। আর অস্কারের সঙ্গে কিংসের চুক্তি ডিসেম্বর পর্যন্ত।'

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের পর এএফসি অনূর্ধ্ব-২৩ চ্যাম্পিয়নশিপ এবং নভেম্বরে শ্রীলঙ্কার একটি চার জাতি টুর্নামেন্ট খেলবে বাংলাদেশ। এই তিনটি প্রতিযোগিতায় অস্কারকে বেছে নেওয়ার কারণ শুধু ঘরোয়া লিগের পারফরম্যান্স নয়, বেশিরভাগ জাতীয় দলের খেলোয়াড় বসুন্ধরা কিংসের। অস্কারকে নেওয়ার পেছনে এই কারণগুলো ছিল বলে জানান কাজী নাবিল, 'গত দু-তিন বছরে সে আমাদের ঘরোয়া পর্যায়ে সবচেয়ে সফল কোচ। জাতীয় দলের অধিকাংশ খেলোয়াড় তার ক্লাবের। বিচার-বিবেচনা করে আমরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।'

অস্কারের নেতৃত্বে বসুন্ধরা কিংস দুটি প্রিমিয়ার লিগ, দুটি ফেডারেশন কাপ ও একটি স্বাধীনতা কাপ জিতেছে। এএফসি কাপে তার সাফল্য আহামরি না হলেও ঘরোয়া লিগে সাফল্যের ওপর ভিত্তি করেই তাকে নিয়োগ দিয়েছে বাফুফে। নতুন কোচের সঙ্গে পরিবর্তন আনা হয়েছে টিম ম্যানেজম্যান্টেও। আমের খান, ইকবাল হোসেন ও ইলিয়াস হোসেনের পর আবারও ম্যানেজারের দায়িত্বে ফিরেছেন ঢাকা আবাহনীর ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু। কোচিং স্টাফে কারা কারা থাকবেন, তা পরে জানাবে বাফুফে।