চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেয়ে ম্যাচের ১৭তম ওভারে মাঠ ছাড়েন আন্দ্রে রাসেল। চার রান বাঁচালেও তার পায়ে এতটাই যন্ত্রণা হতে শুরু করে যে, মাঠে ফেরার ঝুঁকি নিতে পারেননি ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডার। রাসেলের চোটকে কেন্দ্র করে দিল্লি ম্যাচের আগে উদ্বেগ নাইট শিবিরে।

কারণ পরের ম্যাচই শক্তিশালী দিল্লির বিরুদ্ধে। চেন্নাইয়ের কাছে হারের পর কেকেআরের কাছে বাকি ম্যাচগুলো যখন কার্যত নকআউট হয়ে গেল। এই পরিস্থিতিতে রাসেলকে না পেলে রীতিমতো চিন্তায় কেকেআর ম্যানেজমেন্ট।

ম্যাচশেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে দলের মেন্টর ডেভিড হাসিও নিশ্চিত করতে পারেননি রাসেলের খেলার ব্যাপারে। তিনি বলেন, 'রাসেলের চোট কতটা গুরুতর, তা এখনই বলা সম্ভব নয়। রাসেল বলছিল, ওর হ্যামস্ট্রিংয়ে টান ধরেছে। ব্যথাও অনুভব করছে। ওকে সুস্থ করে তোলার সব রকম চেষ্টা করা হবে। রাসেলের জন্য মেডিকেল দলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। তারাই ওর পরিচর্যা করবে। আশা করি, ওর চোট সে রকম গুরুতর নয়। আমাদের দলের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য ক্রিকেটার সে।'

ইয়ন মরগ্যান বলেছেন, 'রাসেলের চোটের অবস্থা কেমন, বলা সহজ নয়। আমরা চাইব, ও যেন দ্রুত মাঠে নামতে পারে।' 

আইপিএলের নিয়ম অনুযায়ী কোন দলের একাদশে সর্বোচ্চ চার বিদেশি ক্রিকেটার খেলতে পারেন। সুনীল নারিন ভালো করায় কলকাতার একাদশে নিয়মিত জায়গা পাচ্ছেন তিনি। এছাড়া অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যান তো খেলবেনই। দলের আরেক বিদেশি হলেন নিউজিল্যান্ডের লকি ফার্গুসন, তিনিও  দুর্দান্ত বোলিং করছেন। 

ইনজুরি ছাড়া কলকাতার সব থেকে বড় তারকা খেলোয়াড় আন্দ্রে রাসেলকে একাদশের বাহিরে রাখার কোন সম্ভাবনা নেই। তাই রাসেল আগামীকাল যদি শতভাগ ফিট না হতে পারেন। তাহলে তার জায়গায় খেলতে পারেন সাকিব আল হাসান।