টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে ওমান পৌঁছেছে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দল। স্থানীয় সময় ভোর চারটার দিকে মাসকাট আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামে মাহমুদউল্লাহ-মুশফিকুর রহিমদের বহনকারী বিমান।

এর আগে রোববার রাত পৌনে ১১টায় ছিল বাংলাদেশ দলের বিশ্বকাপের ফ্লাইট। তা ধরতে রাত ৮টায় বেধে দেওয়া হয়েছিল খেলোয়াড়দের রিপোর্টিং সময়। সেটা মেনে খেলোয়াড়রা চলেও এসেছিলেন বিমান বন্দরে। তখনই শুরু নাটকীয়তার। কারণ বিশ্বকাপের দেশ ওমানে আঘাত হানতে যাচ্ছে ঘূর্ণিঝড়। সেজন্যে প্রথমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, বাংলাদেশ দল রোববার দিবাগত রাতে দেশ ছাড়বে না। তখন বলা হয়, সোমবার সকালে হতে পারে সম্ভাব্য যাত্রা। সেটা জেনে কয়েকজন খেলোয়াড় বাসার পথে যাত্রা করেন।

কিন্তু এর কিছুক্ষণ পরেই বদলে যায় সিদ্ধান্ত। জানানো হয় সংবাদ মাধ্যমে, নির্ধারিত সময়েই ওমানের জন্য দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ দল। নির্ধারিত সময় তো ছিল ১০টা ৪৫ মিনিটে, সেটাও শেষমেশ হয়নি। আড়াই ঘণ্টা পিছিয়ে যায় বাংলাদেশ দলের বিশ্বকাপ যাত্রা।

তবে সেখানেই সব নাটকের শেষ। রাত ১টা ২০ মিনিটে বাংলাদেশ দলের বিমান ঢাকা ত্যাগ করে। এ যাত্রায় ১৪ ক্রিকেটার, ৩ টিমবয়, একজন করে নির্বাচক, মিডিয়া ম্যানেজার ও মেডিক্যাল অফিসার ছিলেন দলের ২১ সদস্যের বহরে। ফিজিও জুলিয়ান ক্যালফেতোও ছিলেন বহরে।

চার্টার্ড বিমানে করে দল সকাল সাড়ে ছয়টা নাগাদ বাংলাদেশ দল পৌঁছায় ওমানে। সেখানে পৌঁছে সোমবার কোয়ারেন্টাইন পালন করতে হবে দলকে। ৫, ৬ ও ৭ অক্টোবর দুপুর দেড়টায় ওমানে অনুশীলন করবে বাংলাদেশের টাইগাররা।