আইপিএলের এলিমিনেটর ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। শেষ ওভারের চতুর্থ বলে ১ রান নিয়ে কলকাতার জয় নিশ্চিত করেন সাকিব। কেকেআরের কাছে হেরে এবারো কপাল পুড়লো কোহলিদের। কলকাতা চলে গেছে আইপিএলের দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে। সেখানে অপেক্ষায় দিল্লি ক্যাপিটালস। 

শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে সোমবার সাকিব আল হাসানকে নিয়ে ফিল্ডিংয়ে নামে কলকতা। সাকিবদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৩৮ রান করে কোহলিরা। এদিন প্রথম ওভারেই সাকিবের  হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক মরগ্যান। প্রথম ওভারে ৭ রান দিয়ে অধিনায়কের আস্থার প্রতিদান দেন সাকিবও। নিজের পরের ওভারে এসে দেন মাত্র ৪ রান।

এরপর ৪৯ রানের উদ্বোধনী জুটির পর সাজঘরে ফেরত যান পাড্ডিকেল। এরপরই চেপে ধরেন কলকাতার স্পিনাররা। সাকিব, সুনীল নারাইন, বরুণ চক্রবর্তীদের ঘূর্ণি সামলাতে পারেননি কোহলিরা। দলটির পক্ষে ৩৩ বলে সর্বোচ্চ ৩৯ রান করেন কোহলি।

২১ রান  খরচায় ৪ উইকেট নেন নারাইন। উইকেট না পেলেও ৪ ওভারে মাত্র ২৪ রান দিয়েছেন সাকিব। 

১৩৯ রানের টার্গেটে নেমে ভালো শুরু পায় কলকাতাও। ৪১ রানের উদ্বোধনী জুটি গড়েন ভেঙ্কাটেশ আয়ার ও শুভমন গিল। ১৮ বলে ২৯ রান করে গিল ও ৩০ বলে ২৬ রান করে আউট হন আয়ার। তবে দারুণ ব্যাটিংয়ে কলকাতাকে এগিয়ে নেন নিতিশ রানা ও সুনীল নারাইন। ১২ তম ওভারে ড্যান ক্রিস্টিয়ানকে পরপর তিন ছক্কা মেরে জয়ের পথ আরও সুগম করেন নারাইন। সেই ওভারেই আসে ২২ রান। ১৫ বলে ২৬ রান করে আউট হন তিনি। শেষ দিকে এউইন মরগ্যান ও সাকিব অপরাজিত থেকে দলের জয় নিশ্চিত করেন। মাত্র ৬ বল খেলে ৯ রান করে অপরাজিত থাকেন সাকিব, এর মধ্যে হাঁকিয়েছেন একটি দৃষ্টিনন্দন বাউন্ডারি।

১১ রান খরচ করে চার উইকেট ও ১৫ বলে ২৬ রান তুলে ম্যাচ সেরা হয়েছেন কলকাতার স্পিনিং অলরাউন্ডার সুনীল নারিন।

বুধবার এই মাঠেই দিল্লির বিপক্ষে অঘোষিত সেমিফাইনালে নামবে কলকাতা। ওই ম্যাচে জয়ী দল শিরোপার লড়াইয়ে মুখোমুখি হবে আগেই ফাইনাল নিশ্চিত করা মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংসের।