আইসিসি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি ম্যাচে বাংলাদেশকে হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের ছুঁড়ে দেওয়া ১৪৮ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেট হাতে রেখেই লক্ষ্যে পৌঁছে যায় লঙ্কানরা।

আবুধাবির টলারেন্স ওভাল স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় বাংলাদেশ দল। সৌম্যের ব্যাটে প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেটে ১৪৭ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ।

প্রথম ৬ ওভারেই লিটন-নাঈমকে হারায় বাংলাদেশ। লিটন দাস ১৬ ও নাইম শেখ ১১ রান করে সাজঘরে ফেরত যান। আগের প্রস্তুতি ম্যাচের মত এই ম্যাচেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ মুশফিক। দাসুন শানাকার বলে মুশফিকুর রহিম ফেরেন ১৩ রানে। এরপর ১১ রানে সাজঘরে ফেরেন আফিফও।

লঙ্কান বোলারদের বিপক্ষে একাই লড়তে থাকেন সৌম্য। কিন্তু সাপোর্ট না পাওয়ায় ইনিংস বড় করতে পারেননি। ২৬ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় ৩৪ রান করে ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গার শিকার হন তিনি। 

১৮তম ওভারের প্রথম দুই বলেই শামীম ও নুরুলকে ফেরান দুশমন্ত চামিরা। এদিন আগের মত ঝড় তোলার আশা দেখালেও ১৫ রানে আউট হন সোহান।

এরপর মাহেদি হাসানের ১ চার ও ১ ছক্কায় ১২ বলে ১৬ রানের কল্যাণে ২০ ওভার শেষে ১৪৭ রানের টার্গেট দাঁড়া করায় বাংলাদেশ।

১৪৮ রানের  জবাবে নেমে শুরুটা ভালো করতে পারেনি শ্রীলঙ্কা। তাসকিন আহমেদের করা ইনিংসের তৃতীয় ওভারে আউট হন ওপেনার কুশল পেরেরা। ৮ বলে ৪ রান করে ফেরেন তিনি। আরেক ওপেনার পাথুম নিসাঙ্কার ব্যাট থেকে আসে ১৫ রান। তাকে আউট করেন শেখ মেহেদী হাসান। দলীয় স্কোর পঞ্চাশ ছোঁয়ার আগে দীনেশ চান্ডিমালকে আউট করেন সৌম্য। আউট হওয়ার আগে চান্ডিমাল খেলেন ১৫ বলে ১৩ রানের ইনিংস।

বাংলাদেশী বোলারদের বোলিং তান্ডবে দলীয় ৭৯ রানেই ৬ উইকেট হারিয়ে বসে লঙ্কা শিবির। তবে শেষ দিকে এসে শ্রীলঙ্কার রানের চাকা সচল করে অভিষকা ফার্নান্দো। এই উইকেটরক্ষক ও ব্যাটসম্যান ৩২ বলে তুলে নেনে ফিফটি যার ফলে কিছুটা চাপে পরে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ২০ ওভারের আগেই ৪ উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে শ্রীলঙ্কা। বাংলাদেশের হয়ে সৌম্য নেন সর্বোচ্চ ২ উইকেট।

পিঠের ব্যথার কারণে এই ম্যাচে ছিলেন না দলের নিয়মিত অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তার বদলে দলকে নেতৃত্ব  দিয়েছেন লিটন কুমার দাস।

বাংলাদেশ দল: 

লিটন দাস (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, আফিফ হোসেন ধ্রুব, নুরুল হাসান সোহান (উইকেটরক্ষক), শামীম হোসেন পাটোয়ারি, তাসকিন আহমেদ, শেখ মেহেদী হাসান, নাসুম আহমেদ ও শরিফুল ইসলাম।

শ্রীলঙ্কা দল: 

কুশল পেরেরা (উইকেটরক্ষক), অভিষকা ফার্নান্দো, ভানুকা রাজাপক্ষে, দাসুন শানাকা (অধিনায়ক), ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা, চামিকা করুনারত্নে, দুশমন্থ চামিরা, মাহিষ থিকশানা, দীনেশ চান্দিমাল, লাহিরু কুমারা, পাথুম নিসাঙ্কা।