ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪

জনসনের কাছে যে কারণে ‘খলনায়ক’ ওয়ার্নার

জনসনের কাছে যে কারণে ‘খলনায়ক’ ওয়ার্নার

ছবি- গার্ডিয়ান

স্পোর্টস ডেস্ক

প্রকাশ: ০৫ ডিসেম্বর ২০২৩ | ১২:৩০

ঘরের মাঠে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিডনি টেস্টেই হবে এই ফরম্যাটে ডেভিড ওয়ার্নারের শেষ ম্যাচ। অস্ট্রেলিয়ান বোর্ড থেকে ৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া ওই টেস্টে ওয়ার্নারকে বিদায়ী সংবর্ধনা দেওয়ারও পরিকল্পনা করেছে। কিন্তু ব্যাপারটি ঠিক মেনে নিতে পারছেন না ওয়ার্নারের সাবেক সতীর্থ মিচেল জনসন। 

২০১৮ সালে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে গিয়ে ‘সেন্ড পেপার’ কেলেঙ্কারিতে জনসনের সঙ্গে নাম উঠেছিল ওয়ার্নার ও স্মিথের। শিরিষ কাগজ দিয়ে বল বিকৃত করার দায়ে এক বছর নিষিদ্ধ হন জনসন। একই শাস্তি ভোগ করতে হয় ওয়ার্নার ও স্মিথকেও। সম্প্রতি ‘ওয়েস্ট অস্ট্রেলিয়ান’-এর এক কলামে জনসন লেখেন, ‘অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় কেলেঙ্কারির নায়ককে কেন নায়কের মতো বিদায় দিতে হবে।’ 

ক্যাঙ্গারুদের বাঁহাতি ওপেনারের সমালোচনা করায় জনসনের মানসিক সুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাচক জর্জ বেইলি। ওয়ার্নারের সতীর্থ উসমান খাজা সমালোচনা করেছেন জনসনের। মাইকেল ক্লার্ক ও টিম পেইনের মতো দুই সাবেক অধিনায়কও সমালোচনা করেছেন জনসনের।

কী এমন হলো, যে একসময়ের জাতীয় দলের সতীর্থ ওয়ার্নারের বন্ধুত্ব ভুলে তাকে খলনায়ক বানানোর জন্য উঠেপড়ে লেগেছে জনসন। সেটার কারণও পরিস্কার করেছেন সাবেক এই অজি পেসার। জনসন জানিয়েছেন ওয়ার্নারের কাছ থেকে একটি খারাপ বার্তা পাওয়াতেই তিনি কলামটি লিখতে প্ররোচিত হন।

দ্য মিচেল জনসন ক্রিকেট শো পডকাস্টে তিনি বলেছেন, ‘আমি ডেভের কাছ থেকে একটি বার্তা পেয়েছিলাম, যা একেবারেই ব্যক্তিগত ছিল। আমি কল দিয়ে তার সাথে কথা বলার চেষ্টা করেছি। সবসময় কথা বলার দুয়ার খোলা রেখেছি।  বার্তাটিতে এমন কিছু বিষয় ছিল, যা অত্যন্ত হতাশাজনক। সত্যি বলতে তিনি বার্তাটিতে যা বলেছিলেন, তা খুবই খারাপ।’

জনসনের মানসিক সুস্থতা নিয়ে জর্জ বেইলির প্রশ্ন তোলার ব্যাপারে সাবেক এই পেসার জানান, ‘আমি ঠিক আছি কি না, জিজ্ঞাসা করেছে সে। আমার সুস্থতা নিয়ে প্রশ্ন তোলার মানে হলো, আমার লেখাকে ছোট করা। খুবই জঘন্য ব্যাপার। আমি জানাতে চাই, আমার মাথা পরিষ্কার আছে। আমি পুরোপুরি ঠিক আছি। কারও প্রতি রাগ করে বা ঈর্ষায় নয়, আমার যা লেখার দরকার ছিল, তাই লিখেছি শুধু। আমি কেন শুধু বার্তা পাব, কেউ কি ফোন করার মতো একটু ভদ্রতা দেখাতে পারে না।’

আরও পড়ুন

×