মুম্বাইয়ে অনুষ্ঠিত দুই ম্যাচ সিরিজের দ্বিতীয় এবং শেষ টেস্টে রেকর্ডগড়া জয় পেয়েছে ভারত। বিরাট কোহলিরা জিতেছে ৩৭২ রানের বড় ব্যবধানে। যা দেশটির টেস্ট ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বোচ্চ রানের জয়। প্রথম টেস্ট ড্র করার পর দ্বিতীয় টেস্টে জয় পাওয়ার কারণে ১-০ ব্যবধানে সিরিজ জিতলো স্বাগতিকরা।

জয়ের পথটা আগের দিনই তৈরি করে রেখেছিল ভারত। নিউজিল্যান্ডের হাতে ছিল ৫ উইকেট। চতুর্থ দিন নেমে ভারতের কাজটা হয়ে গেল দ্রুত। স্পিনার জয়ন্ত যাদবের ঘূর্ণিতে মাত্র ১১.৩ ওভারেই গুটিয়ে গেছে কিউইরা। জয়ের জন্য ৫৪০ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শেষ পর্যন্ত ১৬৭ রানে অলআউট হয়ে যায় নিউজিল্যান্ড। ফলে ৩৭২ রানের বিশাল ব্যবধানে পরাজয় বরণ করলো কিউইরা। চারটি করে উইকেট ভাগাভাগি করেন, রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও জয়ন্ত যাদব। এটা নিয়ে দেশের মাটিতে টানা ১৪টি টেস্ট সিরিজ জয়ের কীর্তি গড়লো ভারত।

ওয়াংখেড়েতে টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। প্রথম ইনিংসে মায়াঙ্ক আগরওয়ালের দুর্দান্ত ব্যাটে ৩২৫ রান করে ভারত। বিশ্বের তৃতীয় বোলার হিসেবে টেস্টে এক ইনিংসে ১০ উইকেট নেন কিউই স্পিনার এজাজ পটেল। তবে তা কাজে লাগেনি। মাত্র ৬২ রানে শেষ হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের প্রথম ইনিংস। ফলো অন না করিয়ে ব্যাট করেন কোহলিরা। ৭ উইকেটে ২৭৬ রানে ইনিংস ঘোষণা করে ভারত। ৫৪০ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমে ১৬৭ রানে শেষ হয়ে যায় নিউজিল্যান্ডের ইনিংস।

ম্যাচটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে কিউই ক্রিকেটার এজাজ প্যাটেলের জন্যই। ভারতের প্রথম ইনিংসের সবগুলো উইকেট নিয়ে জিম লেকার, অনিল কুম্বলের পর ইনিংসে ১০ উইকেট নেওয়ার ইতিহাসে নাম লেখান এজাজ প্যাটেল। বাঁহাতি এই স্পিনার দ্বিতীয় ইনিংসেও নেন ৪ উইকেট। তবে তার এই অবিশ্বাস্য কীর্তি ম্যাচে কোন প্রভাব রাখতে পারল। এমন পারফরম্যান্সের পরও তাই তিনি ম্যাচ সেরা নন। দুই ইনিংস মিলিয়ে ২১২ রান করে ম্যাচ সেরা হয়েছেন ভারতের মায়াঙ্ক আগারওয়াল।