অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় আকর্ষণের নাম অ্যাশেজ। অনেকের কাছেই বিশ্বকাপের চেয়েও অ্যাশেজ বেশি আকর্ষণীয়। ঐতিহাসিক এই সিরিজ শুরু হতে আর ২৪ ঘন্টাও বাকি নেই। এরই মধ্যে ইংল্যান্ড সমর্থকদের জন্য ভেসে এস দুঃসংবাদ। ইংলিশ টেস্ট ইতিহাসের সফলতম বোলার জেমস অ্যান্ডারসন গাব্বায় অনুষ্ঠিত হতে চলা প্রথম টেস্টে খেলতে পারবেন না।

সিডনি মর্নিং হেরাল্ডের প্রতিবেদন অনুযায়ী, অ্যান্ডারসনের কাফে টান লেগেছে। এই সমস্যা ৪০ ছুঁই ছুঁই অ্যান্ডারসনের জন্য নতুন নয়। ২০১৯ সালেও একই চোটে ভুগেছিলেন তিনি। ইংল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট তাকে প্রথম টেস্টে না খেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অ্যান্ডারসন যাতে পাঁচ টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে অ্যাডিলেডে সম্পূর্ণ ফিট হয়ে মাঠে ফেরেন, সেটাই নিশ্চিত করা ইংল্যান্ডের প্রধান উদ্দেশ্যে। যার জেরেই কিংবদন্তি ফাস্ট বোলারকে প্রথম টেস্টে রাখা হয়নি।

বিবৃতিতে ইসিবি জানায়,  'ছয় সপ্তাহের মধ্যে ৫ টেস্ট খেলতে হবে। পরিকল্পনা হচ্ছে অ্যাডিলেডে তাকে দ্বিতীয় টেস্টের জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। ম্যানেজমেন্ট ও অ্যান্ডারসন দুই পক্ষই মনে করে ঝুঁকি নিয়ে খেলা ঠিক হবে না।'

ইসিবি জানায়, পরের টেস্টের জন্য প্রস্তুত হতে যাওয়া অ্যান্ডারসন একদম ফুরফুরে, 'সে গতকাল প্রায় এক ঘন্টা পুরো ছন্দে বল করেছে। আজও অনুশীলনে তা করবে।'

নন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার হিসেবে গ্যাবায় যৌথ সর্বোচ্চ পাঁচ টেস্ট খেলার রেকর্ড আছে অ্যান্ডারসনের। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কোর্টনি ওয়ালশ ও নিউজিল্যান্ডের ড্যানিয়েল ভেট্টোরিও গ্যাবায় খেলেছেন ৫ টেস্ট। গ্যাবায় অবশ্য রেকর্ড বেশ খারাপ অ্যান্ডারসনের। এই ভেন্যুতে ৭৫.১৪ গড়ে কেবল ৭ উইকেট নিয়েছেন পেসারদের মধ্যে টেস্টে সর্বোচ্চ উইকেটের মালিক।

অ্যান্ডারসন না খেলায় ওলি রবিনসন, মার্ক উড, স্টুয়ার্ট ব্রড, ক্রিস ওকসদের মধ্যে তিনজনকে বেছে নেবে ইংল্যান্ড। তাদের সঙ্গে স্পিনার হিসেবে থাকবেন জ্যাক লিচ।