লিগ ওয়ানে টানা দুই ম্যাচে পয়েন্ট হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স উপহার দিল পিএসজি। আলো ছড়ালেন আক্রমণভাগের দুই তারকা লিওনেল মেসি ও কিলিয়ান এমবাপে। ক্লাব ব্রুজকে ৪-১ গোলের বড় ব্যবধানে উড়িয়ে গ্রুপ পর্ব শেষ করল মাওরিসিও পচেত্তিনোর দল। ক্লাববুর্গের বিপক্ষে দুটি গোল করে রেকর্ড গড়েছেন পিএসজির আর্জেন্টাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসি। ভেঙেছেন ব্রাজিলিয়ান কিংবদন্তি ফুটবলার পেলের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড। 

ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত ম্যাচের শুরুতেই গোলের দেখা পায় পিএসজি। বাম দিক থেকে নুনো মেন্দেসের শট ক্লিয়ার করতে গেলে বল চলে যায় ছয় গজ বক্সের বাইরে এমবাপ্পের কাছে। ডান পায়ের শটে দূরের পোস্ট দিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। ম্যাচের সপ্তম মিনিটেই আর একটি গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন তিনি।

ম্যাচের ৩৮তম মিনিটে দুর্দান্ত গোলে স্কোরলাইন ৩-০ করেন রেকর্ড সাতবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। এমবাপ্পের পাস ধরে একটু এগিয়ে বক্সের বাইরে থেকে বাঁ পায়ের শটে লক্ষ্যভেদ করেন ৩৪ বছর বয়সী ফরোয়ার্ড। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে রেকর্ড ৩৮টি ভিন্ন দলের বিপক্ষে গোল করলেন মেসি, বসলেন রোনালদোর পাশে।

দ্বিতীয়ার্ধের পিএসজির রক্ষণে চাপ বাড়ায় ক্লাব বুর্জ। ৬৭তম মিনিটে বেলজিয়ান মিডফিল্ডার মাটস রিটসের গোলে ব্যবধান কমায় বুর্জ। আর ৭৬তম মিনিটে সফল স্পট কিকে ব্যবধান আবার বাড়িয়ে নেন মেসি। তিনি নিজেই প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি।

ক্লাব ব্রুর্জের বিপক্ষে ম্যাচটি শুরুর আগে মেসির গোল ছিল ৭৫৬টি। যা পেলের চেয়ে একটি কম। ৩৮ মিনিটের নিজের প্রথম গোলের মাধ্যমে পেলের সামান এবং নিজের দ্বিতীয় গোল করলে পেলেকে ছাড়িয়ে যান এই আর্জেন্টাইন তারকা।

স্প্যানিশ ক্লাব বার্সেলোনার জার্সিতে ৬৭২, আর্জেন্টিনা জাতীয় দলের হয়ে ৮০ এবং নতুন ঠিকানা প্যারিস সেইন্ট জার্মেইর হয়ে ৬ গোল করে পেলের ৭৫৭ গোলের রেকর্ড ভাঙলেন মেসি।