কিছু দিন আগেই জানিয়েছিলেন আপাতত দৌড় বন্ধ রাখতে হচ্ছে তাকে। কারণ হাঁটুর চোট। অস্ত্রোপচার করাতে যাবেন অস্ট্রেলিয়ায়। এখনও সেই অস্ত্রোপচার হয়নি। দু’মাস পিছিয়ে গিয়েছে। তাই আপাতত ব্যথা কমাতে ইনজেকশনই ভরসা। আর সেই ইনজেকশন নিতে গিয়েই দেশের হয়ে খেলতে গিয়ে যে কষ্ট তিনি সহ্য করেছেন সেই প্রসঙ্গ তুলে আনলেন পাকিস্তানের ‘স্পিড স্টার’ শোয়েব আখতার।

টুইটারে একটি ভিডিও প্রকাশ করেছেন শোয়েব। সেখানে দেখা যাচ্ছে সোফায় বসে হাঁটুতে ইনজেকশন নিচ্ছেন ‘রাওয়ালপিণ্ডি এক্সপ্রেস’। ইনজেকশন নিতে গিয়ে যে ব্যথা হচ্ছে তা তার মুখ দেখলেই বোঝা যাচ্ছে। ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘পাকিস্তানের হয়ে খেলার জন্য এই কষ্ট আমি সহ্য করেছি। কিন্তু যদি আরও এক বার আমি সুযোগ পাই তা হলে আবার এই কষ্ট সহ্য করতে তৈরি। হাঁটুর অস্ত্রোপচার দু’মাস পিছিয়ে যাওয়ায় এখন এই ইঞ্জেকশন নেওয়া ছাড়া কোনও উপায় নেই।’ খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

খেলোয়াড় জীবনে বার বার চোট পেয়েছেন আখতার। চোটের কারণেই অনেক আগে ক্রিকেট থেকে অবসর নিতে হয়েছে তাকে। দু’বছর আগে এক বার হাঁটু প্রতিস্থাপন করিয়েছিলেন। তাতেও সমস্যা মেটেনি। ফের এক বার অস্ট্রেলিয়া গিয়ে হাঁটু প্রতিস্থাপন করাতে হবে তাকে।

১৯৯৭ সালে পাকিস্তানের হয়ে অভিষেক হয় শোয়েব আখতারের। ৪৬ টেস্ট, ১৬৩ এক দিনের ম্যাচ ও ১৫ টি২০ খেলেছেন তিনি। সব মিলিয়ে ৪৪৪টি উইকেট নিয়েছেন এই ‘স্পিড স্টার’। তার মধ্যে টেস্টে ১৭৮, এক দিনের ম্যাচে ২৪৭ ও টি২০-তে ১৯টি উইকেট নিয়েছেন তিনি। ২০১১ বিশ্বকাপের পরে ক্রিকেটে থেকে অবসর যান শোয়েব।