দক্ষিণ আফ্রিকায় আজ অবধি কোনো টেস্ট সিরিজ জেতেনি ভারত। এবার সেই দাগ মোছার চেষ্টা করবেন বিরাট কোহলিরা। অস্ট্রেলিয়াতে দু'বার সিরিজ জয়, ইংল্যান্ডের মাটিতেও সাফল্যের পর এবার লড়াই দক্ষিণ আফ্রিকায়। সেই পথে বেশ কিছু রেকর্ড গড়ার সুযোগ রয়েছে ভারতীয় ক্রিকেটারদের।

১০০ টেস্ট খেলা থেকে তিন ম্যাচ দূরে রয়েছেন বিরাট কোহলি। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে তিনটি ম্যাচ খেললেই এই মাইলফলক ছুঁতে পারবেন ভারতের টেস্ট অধিনায়ক। টেস্ট সিরিজের সব ম্যাচ খেললে কেপটাউনে শততম টেস্ট খেলবেন কোহলী।

ভারতের দ্বাদশ ব্যক্তি হিসেবে শততম টেস্ট খেলার সুযোগ রয়েছে কোহলির সামনে। সেই সঙ্গে টেস্ট ক্রিকেটে আট হাজার রানের গণ্ডিও পার করতে পারেন ভারতের টেস্ট অধিনায়ক। মাত্র ১৯৯ রান বাকি রয়েছে তার। এই সিরিজেই সেই মাইলফলক ছুঁতে পারেন কোহলি।

ছন্দ হারিয়েছেন চেতেশ্বর পুজারা। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সেটাই খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা করবেন তিনি। প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ১৪ ম্যাচে ৭৫৮ রান করেছেন ভারতের তিন নম্বর ব্যাটার। আর ২৪২ রান করলেই দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে হাজার রানের মালিক হবে তিনি।

ইংল্যান্ড এবং অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে হাজারের বেশি রান রয়েছে পূজারার। দক্ষিণ আফ্রিকা তৃতীয় প্রতিপক্ষ হতে পারে যাদের বিপক্ষে হাজার রানের মাইলফলক টপকে যেতে পারেন তিনি।

পূজারার মতো ছন্দ হারিয়েছেন রাহানেও। হাজার রানের মাইল ফলকের খুব কাছে রয়েছেন তিনি। ১০ টেস্টে ইতিমধ্যেই ৭৪৮ রান করেছেন তিনি। আর ২৫২ রান করলে তিনি পৌঁছে যাবেন হাজার রানে।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে হরভজন সিংহকে টপকে গিয়েছেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে কপিল দেবকে টপকে যাওয়ার সুযোগ আছে। এই মুহূর্তে অশ্বিনের ঝুলিতে ৪২৭টি উইকেট। কপিলের সংগ্রহ ৪৩৪টি উইকেট। দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজে আটটি উইকেট নিতে পারলেই টপকে যাবেন ভারতের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ককে।

ব্যক্তিগত রেকর্ডের সামনে মোহাম্মদ শামিও। আর ৫টি উইকেট নিলেই টেস্টে ২০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়ে ফেলবেন তিনি। ভারতের পঞ্চম পেসার হিসেবে এই মাইলফলক স্পর্শ করবেন তিনি।

দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে পাঁচ টেস্টে ২১টি উইকেট নিয়েছেন শামি। এই সিরিজে আর আটটি উইকেট নিলে কোহলির নেতৃত্বে ১০০টি উইকেট হয়ে যাবে তার।