অস্ট্রেলিয়ান এক ক্রিকেটার একাধিক নারীর সঙ্গে যৌন কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি নিতেন কোকেন। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) নৈতিকতা বিষয়ক সাবেক এক কর্মকর্তার সঙ্গে এক তথ্য ফাঁসকারীর ফোনালাপের অডিও রেকর্ডে এসব বিষয় ওঠে আসে। বিষয়টি সামনে আসার পর অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ডের দুর্নীতি বিরোধী ইউনিটের নিরাপত্তার বড় ধরনের দুর্বলতা ধরা পড়েছে। 

অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্ন থেকে প্রকাশিত দ্য সানডে এজকে অজ্ঞাত এক মেইল থেকে ওই ফোনালাপের অডিওটি পাঠানো হয়। ওই ফোনালাপে এক নারী, যিনি নিজেকে উচ্চ শ্রেণির একজন যৌন কর্মী দাবি করে নৈতিকতা বিষয়ক তৎকালীন প্রধান সেন ক্যারোলকে বলেন, একজন সুপরিচিত ক্রিকেটারকে ব্যাকআপ দেওয়া উচিত। না হয় ওই ক্রিকেটারের ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাবে।      

ফোনালাপে সেই নারী অভিযোগ করেন, ওই ক্রিকেটার নগ্ন হয়ে ব্যালকনিতে নেচেছেন। প্রকাশ্যে কোকেন নিয়েছেন এবং একাধিক নারীর সঙ্গে সময় কাটাচ্ছেন।    

ধারণা করা হচ্ছে ফোনালাপটি বেশ কয়েকবছর আগের এবং নাম অপ্রকাশিত ওই ক্রিকেটারের বিরুদ্ধে তোলা অভিযোগ অপ্রমাণিত। এছাড়া ঠিক কত সালের ফোনালাপ সেটাও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। কিন্তু এতবছর ওই ফোন রেকর্ড রাখা এবং এত সহজে তা ফাঁস হওয়ায় খেলাধুলার দুর্নীতি বিশেষজ্ঞরা শঙ্কা প্রকাশ করেছেন। কারণ তারা ধারণা করছেন, এতে খেলোয়াড়রা ব্যাধেকমেইলের শিকার হতে পারেন এবং তথ্যফাঁসকারীরাও আর তথ্য দিতে চাইবেন না।   

এটা নিশ্চিত না কখন বা কিভাবে রেকর্ডিংটি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া থেকে নেওয়া হয়েছে। একটি অজ্ঞাত মেইল আইডি থেকে গোপন মেইলের মাধ্যমে এটি সানডে এজকে দেওয়া হয়। ওই খেলোয়াড়ের পরিচয় শনাক্ত না হলেও পত্রিকাটি এটি নিশ্চিত করেছে যে, রেকর্ডিংটি ভুয়া নয়।