সকালের শুরুতে কিউই ইনিংসে আঘাত হানলেও প্রথম দুই সেশন খুব একটা ভালো কাটেনি বাংলাদেশের। তবে তৃতীয় সেশনে বোলারদের দাপটে স্বস্তিতে দিনশেষ করল টাইগাররা। এদিন ব্যাট হাতে সেঞ্চুরির দেখা পেয়েছেন কিউই টপঅর্ডার ব্যাটার ডেভন কনওয়ে। ৫ উইকেট হারিয়ে প্রথম দিনে ব্ল্যাপক্যাপসদের সংগ্রহ দাঁড়িয়েছে ২৫৮ রান। নিকোলস ৩২ রান নিয়ে আগামীকাল দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করবেন। বাংলাদেশের হয়ে দুটি উইকেট নিয়েছেন শরিফুল ইসলাম আর একটি করে উইকেট নিয়েছেন ইবাদত হোসেন এবং মুমিনুল হক।

কিউইদের বিপক্ষে প্রথমদিনে চোখে পড়েছে পেসারদের পারফরম্যান্স। টাইগার পেসারদের দাপটে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে স্বস্তি নিয়েই দিনশেষ করেছে সফরকারীরা। তাইতো দিনশেষে বাংলাদেশ বোলিং কোচ ওটিস গিবসন জানিয়ে দিলেন, শিষ্যদের নিয়ে গর্বিত তিনি।

গিবসন বলেন, 'সব পেসারই ভালো করেছে। এবাদতও ভালো করেছে। ওদের জন্য এই কন্ডিশন কিন্তু অচেনা। আমরা একটু সামনে বল করেছি। সুইং করিয়েছি। দেখা যাবে এমন বোলিংয়ে হয়তো অন্যদিন আরও ২-৩টা উইকেট বেশি পড়েছে। কনওয়ে একটুর জন্য বেঁচে গেছে। তবে এটাই হয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। আজ অনেক গরমও ছিল। ওদের নিয়ে আমি গর্বিত।'

শিষ্যদের সুইং শেখানো নিয়ে কাজ করছেন গিবসন। তবে তার কণ্ঠে আরও কয়েকটি উইকেট না পাওয়ার আক্ষেপও ঝরেছে। বাংলাদেশের পেস বোলিং কোচ বলেন, 'আমরা সুইং করানো নিয়ে কাজ করেছি। আজ সবাই সুইং করানোর চেষ্টা করেছে। বাংলাদেশে ওরা ব্যাক অব দ্য লেংথে বল করে বেশি। কারণ সেখানে তেমন সুইং থাকে না। আমরা আজ আরও বেশি উইকেট পেতে পারতাম। কিন্তু বুঝতে হবে আমরা বিশ্বের অন্যতম সেরা দলের বিপক্ষে খেলছি।'