নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথমবার তাদের মাটিতে জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। মাউন্ট মঙ্গানুই টেস্টে কিউইদের হারিয়ে এবার সিরিজের দিকে তাকিয়ে বাংলাদেশ। আগামীকাল রোববার রাত ৪টায় শুরু হতে যাওয়া দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশের জন্য অপেক্ষা করছে কঠিন পরীক্ষা। কারণ সিরিজ বাঁচাতে এবং ঘরের মাঠের সুবিধা নিতে ক্রাইস্টচার্চে সবুজ উইকেট তৈরি করতে যাচ্ছে কিউইরা। যদিও তাদের এমন পরিকল্পনা খুব একটা কাজে আসবে না বলে বিশ্বাস করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।

নিউজিল্যান্ডে দেশের সবচেয়ে সফল ক্রিকেটারদের একজন সাকিব আল হাসান। ২০১৭ সালে রেকর্ড জুটি গড়ে ডাবল সেঞ্চুরি করেছিলেন বাঁহাতি এ অলরাউন্ডার। ২০০৮ সাল থেকে নিউজিল্যান্ড সফর করা সাকিব জানেন, ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে কীভাবে খেললে বাংলাদেশ দলের ভালো করার সম্ভাবনা বেড়ে যাবে। গতকাল ঢাকায় পণ্যদূতের চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে সাকিব বলেন, ক্রাইস্টচার্চে টসের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা থাকবে। তবে জয়ের আত্মবিশ্বাস কাজে লাগাতে পারলে ভালো করার সুযোগ থাকবে বলে মনে করেন তিনি। অধিনায়ক মুমিনুল হকের জন্য সাকিবের এই পরামর্শ টনিকের মতো কাজে দিতে পারে। কারণ আগে দু'বার নিউজিল্যান্ডে গেলেও ক্রাইস্টচার্চের হেগলি ওভালে ম্যাচ খেলা হয়নি তার।

হেগলি ওভালে বাতাসের আধিক্য থাকে। উইকেটে ঘাস থাকে বেশি। এককথায় স্পোর্টিং উইকেট থাকে দেশটিতে। সাকিব নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বলেন, 'ক্রাইস্টচার্চে সবুজ উইকেট হলেও আমাদের জন্য সুবিধা থাকবে। আমাদের তিনজন পেসার খুব ভালো বল করেছে। মিরাজ আছে। ওদের (নিউজিল্যান্ড) এটাও মাথায় রাখতে হবে- আমাদের বোলারদের মোকাবিলা করতে হবে। স্বাভাবিকভাবে যেটা হয়, ম্যাচ জেতার পর সবাই অনেক আত্মবিশ্বাসী থাকে। আমি আশা করব, ওই আত্মবিশ্বাসটা যেন কাজে লাগে। সব সময় কাজে লাগবে, তাও না। নতুন একটা ম্যাচ, সতেজ উইকেট থাকবে, টস জেতাটাও গুরুত্বপূর্ণ হবে। টস বড় ফ্যাক্টর হয়ে দাঁড়াবে। কারণ নিউজিল্যান্ডে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় দিনে উইকেটটা খুবই ভালো থাকে। সেক্ষেত্রে টস জিতে ফিল্ডিং করতে পারলে সবচেয়ে ভালো হবে দলের জন্য। টস না জিতলে টাফ হবে। তবে প্রথম ম্যাচ থেকে যে আত্মবিশ্বাসটা পেয়েছে সেটা কাজে লাগাতে পারবে।' 

পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটিয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বৃহস্পতিবার দেশে ফেরেন সাকিব। বিসিএল ওয়ানডে টুর্নামেন্টে খেলার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন তিনি। বাঁহাতি এ অলরাউন্ডার বলেন, 'সামনে টানা আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আছে। আমি চাইব আমার সেরা ফিটনেস নিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট শুরু করতে। বিসিএলে দুটি ম্যাচ খেলার পর বিপিএল খেলব। সামনে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে এবং টি২০ সিরিজ আছে। ওই দুইটা ফরম্যাটে খুব ভালোভাবে কমপ্লিট করতে হবে। সেজন্যই এই প্রস্তুতিটা নেওয়া।' বিপিএলে ফরচুন বরিশালের নেতৃত্ব দেবেন সাকিব। অষ্টম বিপিএলে চ্যাম্পিয়নশিপের জন্য খেলতে চান তিনি।