বরেণ্য অভিনেতা ও প্রযোজক সোহেল রানার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে। যেজন্য গত ৬ জানুয়ারি তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র [আইসিইউ] থেকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয়েছিল। আগামীকাল দুপুরে এই অভিনেতা বাসায় ফিরবেন জানালেন সোহেল রানার ছেলে মাশরুর পারভেজ।

বৃহস্পতিবার সমকালকে মাশরুর বলেন, 'আব্বুর অবস্থা আগের চেয়ে ভালো। ইতোমধ্যে তিনি করোনাও মুক্ত হয়েছেন। চিকিৎসকরা বলেছেন, তিনি নিউরো কম্প্রোমাইজড জটিলতা ভুগছেন। এই সময়ে অন্য যে কোন রোগ হলে বড় ক্ষতি হবে। তাকে এখন হাসপাতালে না রেখে বাসায় রেখে চিকিৎসা দিলে ভালো হবে। যদিও আব্বুর হাসপাতালে থাকা উচিত। সামান্য হলেও এখনও তাকে অপিজেন সাপোর্ট নিতে হচ্ছে। সবদিক বিবেচনা করে আব্বুকে কাল বাসায় নিয়ে যাবো। পুরোপুরি সুস্থ্য হতে তার আরও সময় লাগবে। সবাই আব্বুর জন্য দোয়া করবেন।'

সোহেল রানা বর্তমানে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। গত ২৫ ডিসেম্বর রাতে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। করোনা উপসর্গ নিয়েই চিকিৎসকের শরনাপন্ন হন। এরপর তার করোনা শনাক্ত হয়। করোনা ও বার্ধক্যজনিত কারণে সোহেল রানার অবস্থার অবনতি হতে থাকে। পরে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়েছিল।

প্রসঙ্গেত, ঢাকাই সিনেমার একসময়কার দাপুটে সোহেল রানা'র পুরো নাম মাসুদ পারভেজ সোহেল রানা। সিনেমায় তার পথচলা শুরু হয়েছিল প্রযোজক হিসেবে। তার প্রযোজিত মুক্তিযুদ্ধের প্রথম পূর্ণাঙ্গ সিনেমা 'ওরা ১১ জন'। ১৯৭৩ সালে সোহেল রানা নামে 'মাসুদ রানা' সিনেমায় নায়ক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। এরপর বহু নন্দিত সিনেমায় অভিনয় করেছেন। তিনবার পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার।