বিপিএল মাঠে গড়ানোর আগেই আলোচনার জন্ম দিয়েছে ঢাকা। খেলোয়াড় ড্রাফটের আগের দিন জানা যায়, নির্ধারিত সময়ে ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি জমা না দেওয়ায় রুপা ফেব্রিকস ও মার্ন স্টিলকে ঢাকার মালিকানা দেয়নি বিসিবি। এরপর বিসিবিই দল সাজায়। পরবর্তীতে ঢাকার মালিকানা কিনেছে মিনিস্টার গ্রুপ। এবারের বিপিএলে 'মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা' নামেই খেলবে ঢাকার দলটি। ২১ জানুয়ারি উদ্বোধনী দিনে ঢাকা তাদের প্রথম ম্যাচ খেলবে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে। 

বিপিএল শুরুর আগে জেনে নেওয়া যাক কেমন দল গড়লো মিনিস্টার গ্রুপ ঢাকা।

বরাবরের মত এবারো ঢাকার দলে তারকা ক্রিকেটারদের ছড়াছড়ি। বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহকে ড্রাফটের আগেই দলে নিয়েছে তারা। এরপর ড্রাফট থেকে বাংলাদেশ ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল এবং জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাকেও দলে নেয় ঢাকা।

এছাড়া জাতীয় দলের মোহাম্মদ নাঈম, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম ও শুভাগত হোমের মতো ক্রিকেটাররাও আছেন ঢাকার দলে। আরাফাত সানি, ইমরান উজ জামান, শফিউল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম, শামসুর রহমান ও এবাদত হোসেন চৌধুরীও আছেন তারকাভরা ঢাকার দলে। ড্রাফট শেষে নেওয়া হয় আলোচিত লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেনকে।

ড্রাফটের পর ক্যারিবীয় অলরাউন্ডার আন্দ্রে রাসেলকে দলে নেয় ঢাকা। রাসেল অবশ্য শুরুর কয়েকটি ম্যাচে অংশ নেবেন, থাকবেন না পুরো আসরজুড়ে। ড্রাফট থেকে বিদেশি খেলোয়াড়দের মধ্যে দলে ভেড়ানো হয়েছে আফগানিস্তানের মোহাম্মদ শাহজাদ ও মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান নজিবউল্লাহ জাদরানকে।

আরেক আফগান লেগ স্পিনার কায়েস আহমেদ বিগ ব্যাশ ছেড়ে আসবেন বিপিএলে ঢাকার হয়ে খেলতে। টি-টেন লিগে ভালো করা আফগান তরুণ ফজল হক ফারুকিও আছেন ঢাকার দলে।

একনজরে মিনিস্টার ঢাকার স্কোয়াড:

মাহমুদউল্লাহ, নজিবউল্লাহ জাদরান, ইসুরু উদানা, কায়েস আহমেদ, তামিম ইকবাল, রুবেল হোসেন, মাশরাফি বিন মুর্তজা, শুভাগত হোম চৌধুরী, মোহাম্মদ নাঈম, আরাফাত সানি, মোহাম্মদ শেহজাদ, ফজল হক ফারুকি, ইমরান উজ জামান, শফিউল ইসলাম, জহুরুল ইসলাম, শামসুর রহমান, ইবাদত হোসেন।