করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রনের প্রকোপ বেড়ে যাওয়ার ফের বোতলবন্দি হতে চলেছে ক্রীড়াঙ্গন। জানুয়ারির শেষ দিকে অস্ট্রেলিয়া সফরের কথা ছিল নিউজিল্যান্ডের। কিন্তু কঠোর কোয়ারেন্টিন নীতি ও সীমান্তের কড়াকড়ির কারণে স্থগিত করা হয়েছে নির্ধারিত এই সিরিজ। সফরে গেলে নিজ দেশে ফিরে অন্তত ১০ দিনের আইসোলেশনে থাকতে হতো কেন উইলিয়ামসনের দলকে।

২০২০ সালের প্রথমদিকে যখন করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে তখনই অস্ট্রেলিয়ায় তিনটি ওয়ানডে ও একটি টি ২০ ম্যাচ স্থগিত করে দেওয়া হয়। গত বছর তা আয়োজন করার কথা থাকলেও করোনা পরিস্থিতিতে সম্ভব হয়নি। এরপর ২৪ জানুয়ারি থেকে ৯ ফেব্রুয়ারির মধ্যে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে এই চারটি ম্যাচ খেলার কথা ছিল নিউজিল্যান্ডের। তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ হওয়ার কথা ছিল পার্থ, হোবার্ট ও সিডনিতে। টি২০ ম্যাচটি ক্যানবেরায়। 

আয়োজক ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) প্রধান নির্বাহী নিক হকলি জানিয়েছেন, দুঃখের সাথে জানাচ্ছি যে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজটি নির্ধারিত সময়ে হচ্ছে না। আমরা অবশ্যই সিরিজটি পরবর্তীতে আয়োজনের জন্য নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ডের সাথে আলোচনা করছি। আমরা নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটকে ধন্যবাদ জানাই। কেননা তারা নিজেদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছে এই সিরিজটি খেলার জন্য। কিন্তু কোয়ারেন্টিন জটিলতার কারণে এই মুহূর্তে তাদের পক্ষে তা সম্ভব হচ্ছে না। সিরিজটি শেষ হওয়ার কথা ছিল আগামী ৯ ফেব্রুয়ারি। অস্ট্রেলিয়া সফর শেষ করে দেশে ফেরার পর নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটারদের কোয়ারেন্টিনের মধ্য দিয়ে যেতে হতো। এই ঝামেলা এড়ানোর জন্যই সিরিজটি এ সময়ে না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা।

নিউজিল্যান্ডের অস্ট্রেলিয়া সফর স্থগিত হলেও দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারতীয় মহিলা দল, নেদারল্যান্ডসের নিউজিল্যান্ড সফর ও মহিলা বিশ্বকাপ নির্ধারিত সূচি মেনেই হবে।