আগামীকাল পর্দা উঠতে যাচ্ছে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) সপ্তম আসরের। এর মধ্যেই করাচি জাতীয় স্টেডিয়ামে ঘটল এক অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। জিও নিউজের সূত্রমতে, স্টেডিয়ামের ধারাভাষ্যকক্ষ আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পিএসএলের জন্য বিশেষভাবে সাজানো হয়েছিল ধারাভাষ্যকক্ষ। বাউন্ডারি সীমানার দড়িও এ আগুনে আংশিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তবে কেউ হতাহত হয়নি। ফায়ার ব্রিগেড ডেকে আগুন নেভানো হয়। 

পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, জরুরি অবস্থা মোকাবিলায় ফায়ার ব্রিগেডের একটি দল করাচি স্টেডিয়ামে মোতায়েন করা হয়েছে। জৈব সুরক্ষাবলয়ের মধ্যে রাখার উদ্দেশ্যে করাচি স্টেডিয়ামের তৃতীয় তলা থেকে ধারাভাষ্যকক্ষ মাঠের পাশে নামিয়ে আনা হয়েছে। 

পিএসএলে এবার অংশগ্রহণ করবে ৬টি দল। ২৭ জানুয়ারি শুরু হয়ে ২৭ ফেব্রুয়ারি ইতি ঘটবে সপ্তম আসরের। আগের আসরগুলোতেও প্রযুক্তির ব্যবহার দেখা গেছে। এবারও আগের প্রযুক্তির সঙ্গে আরও কিছু যোগ করেছে পিএসএল কর্তৃপক্ষ।

জনপ্রিয় এই ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগের আয়োজকরা জনিয়েছে, এবার পিএসএল সম্প্রচারের জন্য মাঠে রাখা হবে ৩০টি হাই-ডেফিনেশন ক্যামেরা। সেই সঙ্গে থাকবে বাগি ক্যাম ও ড্রোন ক্যামেরাও। মূলত টিভির দর্শকদের স্বাচ্ছন্দ্য দিতে এসব প্রযুক্তি যুক্ত করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)।

এবারের পিএসএলে খুব কাছ থেকে স্পাইডার ক্যামের মাধ্যমে ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকারদের মধ্যকার কথোপকথন দেখানো হবে। যদিও পিএসএলে প্রযুক্তিটি আগেও ব্যবহার হয়েছে।

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে পিএসএলের এবারের আসর ২৫ শতাংশ দর্শকের উপস্থিতিতে আয়োজনের পরিকল্পনা করছে পিসিবি। 

পিএসএলের দুই বছরের জন্য সম্প্রচার স্বত্ব বিক্রি করেছে তারা ২৪ মিলিয়ন ডলার (প্রায় ২০৬ কোটি টাকা)। পাকিস্তানের স্থানীয় দুটি স্পোর্টস চ্যানেল 'এ' স্পোর্টস এবং পিটিভি স্পোর্টস ২৪ মিলিয়ন ডলারে এই স্বত্ব কিনে নিয়েছে।