৪৫ রানে নেই ৬ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ যখন হারের অপেক্ষায় ছিল, তখন প্রতিষ্ঠিত ব্যাটসম্যান বলতে তখন ছিলেন কেবল আফিফ হাসান ও মেহেদী হাসান মিরাজ। কিন্তু সবাইকে তাক লাগিয়ে দুজন মিলে বাংলাদেশকে জিতিয়ে আসেন। ৪ উইকেটের অবিশ্বাস্য জয়ের পর তামিম জানিয়েছিলেন, এই ম্যাচও যে জেতা যাবে সেই বিশ্বাস ছিল না তার। কিন্তু কোচ রাসেল ডমিঙ্গো জানালেন, বাংলাদেশ যে জিতবে তা আগেই জানতেন তিনি। 

দ্বিতীয় ওয়ানডের আগের দিন দক্ষিণ আফ্রিকান এই কোচ বললেন, 'যখন মিরাজ ব্যাট করতে নেমেছিল, তখন আমি (টিম অ্যানালিস্ট) শ্রীকে বললাম যে তারা ১৫০ রান করে ফেলবে। তাসকিন ও শরিফুলকে নিয়ে তখনো আমাদের ১৫ রান প্রয়োজন হবে। ওই মুহূর্তে মিরাজের ব্যাটিংয়ে আমার অনেক আত্মবিশ্বাস ছিল। তার একটি টেস্ট শতক আছে। নিউজিল্যান্ড ও বিপিএলেও ভালো করেছিল। আমি জানি এটা বিশ্বাস করা কঠিন শোনাবে, কিন্তু আমার মনে হচ্ছিল আমরা জিতব। ভালো উইকেট ছিল এটি। রানরেটও আমাদের হাতের নাগালে।'

এদিকে সফরকারী আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজ জিততে আগামীকাল দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আরো ভাল ক্রিকেট খেলতে বিশেষ করে টপ অর্ডার এবং বোলিংয়ে আরও উন্নতি করার আহ্বান জানিয়েছেন বাংলাদেশের প্রধান কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো। তিনি জানান, 'আগামীকালের খেলায় আমাদের আরও ভালো ক্রিকেট খেলতে হবে। গতকাল আমরা ১৩টি ওয়াইড বল করেছি। আমরা একটা ক্যাচ মিস করেছি। ৪৫ রান তুলতেই আমাদের ৬ উইকেট পড়ে গেছে। গতকালের পারফরমেন্সের পর প্রতিটি বিভাগে আমাদের আরও উন্নতি দরকার। আমাদের একটি দুর্দান্ত জুটি ছিল।'

এমন মন্তব্যের পর ডোমিঙ্গো জানান, প্রথম ম্যাচে টপ-অর্ডার ব্যাটাররা হতাশ করেছে। সাকিব ছাড়া প্রথম ছয় ব্যাটারের কেউই দু'অংকে পা রাখতে পারেননি। 

ডোমিঙ্গো জানান, 'আরও ভালো খেলতে হবে (পরের ম্যাচে)। আমাদের সেরা মানের উপরের সারির ব্যাটিং অর্ডার আছে। একমাস পর টি-টোয়েন্টি থেকে বেরিয়ে এসেছে ছেলেরা। গতকাল তাদের পারফরমেন্স হতাশজনক ছিলো। তবে আমি আগামীকাল আরও ভাল ব্যাটিং পারফরমেন্স আশা করছি।'

ডোমিঙ্গো আরও বলেন, 'তাদের সোজা খেলতে হবে। তাদের বাঁ-হাতি পেসার (ফজলহক ফারুকি) গতকাল ভালো স্পেল করেছেন। তিনি কিছু ভালো বল করেছেন- লিটন, রাব্বি ও মুশফিককে। আগামীকাল ফারুকিকে আরও ভালভাবে মোকাবিলা করতে হবে আমাদের।'