জিম্বাবুয়ে সফরের ওয়ানডে সিরিজের দলে ছয়টি পরিবর্তন এনে আফগান সিরিজের দল দিয়েছে বিসিবি। তর্ক সাপেক্ষে এটিই ওয়ানডে ফরম্যাটে বাংলাদেশের সেরা ওয়ানডে দল। ফজল হক ফারুকি-রশিদ খানদের বিপক্ষে সেরা এই দল সিরিজের প্রথম ওয়ানডে ম্যাচে প্রত্যাশিত ক্রিকেট খেলতে পারেনি।

বল হাতে মুস্তাফিজুর রহমান-শরিফুল ইসলাম ভালো করেছেন। স্পিন আক্রমণে সাকিব আল হাসান- মেহেদি মিরাজ ছিলেন সাবলীল। লেন্থ হারিয়ে বোলিং করলেও ইনজুরি থেকে ফেরা তাসকিন গুরুত্বপূর্ণ ব্রেক থ্রু দিয়েছেন।

তবে ব্যাট হাতে টপ ও মিডল অর্ডার ব্যর্থ হয়েছে। লোয়ার মিডল অর্ডারে মিরাজ ও আফিফ মান বাঁচানো ব্যাটিংয়ে জয় এনে দিয়েছেন দলকে। এক ম্যাচ হাতে রেখে সিরিজ নিশ্চিত করার ম্যাচে ব্যাটে-বলে টাইগারদের থেকে সেরা ক্রিকেট দেখতে অপেক্ষা ভক্তদের।

‘সেটেল ব্যাটিং’ অর্ডারে পরিবর্তনের আভাস নেই। ওপেনার লিটন দাস প্রথম ম্যাচে রান না পেলেও হেড কোচ মনে করিয়ে দিলেন, সর্বশেষ সিরিজে সেঞ্চুরি করেছিলেন তিনি। সাকিব-মুশফিকের জায়গা নিয়ে নেই প্রশ্ন। পাঁচ নম্বর ব্যাটিং অর্ডারে প্রথমবার ওয়ানডে খেলতে নেমে ইয়াসির রাব্বি ব্যর্থ হলেও টিম ম্যানেজমেন্ট তার ওপরই আস্থা রাখছেন।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামে ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে দলে পরিবর্তন না আনার ইঙ্গিতই দিয়েছেন টাইগার হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। আফিফ-মিরাজ ও ইয়াসিরের ব্যাটিং অর্ডার শাপল করার প্রশ্ন তোলা হলে কোচ তা উড়িয়ে দিয়েছেন, ‘আমি মনে করি, তেমন কিছুর দরকার নেই।’ মিরাজ-আফিফের ব্যাটিং অর্ডার ঠিক আছে বলেও উল্লেখ করেন দক্ষিণ আফ্রিকান এই কোচ।

বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: লিটন দাস, তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম (উইকেটরক্ষক), ইয়াসির রাব্বি, মাহমুদুল্লাহ, আফিফ হোসেন, মেহেদি মিরাজ, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম ও মুস্তাফিজুর রহমান।

আফগানিস্তানের সম্ভাব্য একাদশ: রহমানুল্লাহ গুরবাজ (উইকেটরক্ষক), ইব্রাহিম জাদরান, রহমত শাহ, হাসমতুল্লাহ শাহেদি (অধিনায়ক), নাজিবুল্লাহ জাদরান, মোহাম্মদ নবী, গুলবাদিন নাঈব, রশিদ খান, মুজিব উর রহমান, ইয়ামিন আহমেদজাই ও ফজল হক ফারুকি।