‘একা অনুশীলন করেছি। পাঁচ মাস কোচিং প্যানেল বা ম্যানেজমেন্টের কেউ খোঁজ নেননি।’ বাংলাদেশ জাতীয় দলের পেস অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন সোমবার সংবাদ মাধ্যমকে আক্ষেপের সুরে কথাগুলো বলেছিলেন।

পরদিন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) থেকে তাকে তলব করা হয়। পরে সাইফউদ্দিন সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, এক তরফা বোর্ডের বিপক্ষে কথা বলায় তিনি অনুতপ্ত। তার কথা বলার ক্ষেত্রে আরও ম্যাচিউরিটি দরকার।

সাইফউদ্দিন বলেন, ‘আপনারা জানেন, কালকে কিছু কথা বলেছিলাম। এগুলো বলা ঠিক হয়নি। হতাশা থেকে কথাগুলো বলেছি। ইনজুরির মধ্যে বিসিবি আমার পাশে ছিল। সেগুলো বলতে হতো। কিছু কিছু কথা সংবাদ মাধ্যমেও মিস ইউস (অপব্যবহার) হয়েছে। বিসিবি’র বিপক্ষে যা-ই বলেছি আমি তার জন্য অনুতপ্ত।’

সাইফউদ্দিন জানান, বয়স ভিত্তিক দল থেকে বিসিবি তার পাশে আছে। অনূর্ধ্ব-১৯ থেকে তার ইনজুরি ছিল, বোর্ড তাকে সহায়তা করেছে। সর্বশেষ যে ইনজুরি ছিল তা থেকে সেরে উঠতে তাকে ইংল্যান্ডে চিকিৎসা নিতে পাঠিয়েছে। এগুলো তিনি না বলে বিসিবি’র সমালোচনা করেছেন। তিনি জানান, এগুলোও তাকে বলতে হতো।

ডানহাতি পেস অলরাউন্ডার বলেন, ‘সরাসরি আমি বিসিবি কিংবা কোন কোচিং স্টাফকে দোষ দেইনি। হয়তো ইনডাইরেক্টলি কিছু বলেছি। সেটাও বলা ঠিক হয়নি। এখন থেকে ভেবেচিন্তে কথা বলবো। আগে হয়তো একটা কথা বলতে ১০ সেকেন্ড ভাবতাম। এখন এক মিনিট ভেবে বলবো। মানুষ মাত্রই ভুল করে। আমারও অনেক ম্যাচিউরিটির দরকার আছে।’

বেফাঁস মন্তব্য করবেন না বলার পরই সংবাদ মাধ্যম নিয়ে মনগড়া কথা বলেছেন পেস অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিন। তিনি বলেন যে, ক্রিকেট বোর্ড এবং ক্রিকেটাররা না থাকলে সংবাদ মাধ্যমের অস্বিত্ব থাকতো না। বাংলাদেশ দল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলছে। বিশ্ব আসরে ভালো করছে বলেই সংবাদ মাধ্যম টিকে আছে। বিসিবি বা ক্রিকেটার না থাকলে সংবাদ মাধ্যমই ক্ষতিগ্রস্ত হবে।