ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে গুডিসন পার্কে এভারটনের কাছে ১-০ গোলে হারে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ম্যাচ হেরে বিতর্কে জড়িয়েছে দলের প্রাণভোমরা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ম্যাচ শেষে ড্রেসিং রুমে ফিরে যাওয়ার পথে রাগান্বিত রোনালদো এভারটনের এক সমর্থকের মোবাইল ফোন ভেঙে ফেলেন। এই ঘটনার পর আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে বেশ সমালোচনার সম্মুখীন হন রোনালদো।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, পায়ে চোট নিয়ে মাঠ থেকে বেরিয়ে খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে টানেলে ঢোকার ঠিক আগে হাত বাড়িয়ে কিছু একটা সজোরে আঘাত করেন রোনালদো। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, এক দর্শকের ফোন আছাড় মারেন রোনালদো। মাটিতে আছড়ে পড়ে ভেঙে যায় ফোনটি।

তবে কয়েক ঘণ্টা পার হতে না হতেই নিজের ভুল বুঝতে পেরেছেন রোনালদো। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে ক্ষমা চেয়েছেন রোনালদো। পর্তুগিজ তারকা লিখেছেন, 'যে ধরনের পরিস্থিতির মোকাবিলা আমরা করছি, এরকম কঠিন পরিস্থিতিতে আবেগ সামলানো কখনোই সহজ নয়। তবে যাই হোক, আমাদেরকে শ্রদ্ধাশীল ও ধৈর্যশীল হতে হবে। নান্দনিক এই খেলাকে ভালোবাসে যে তরুণরা, তাদের সামনে উদাহরণ তৈরি করতে হবে।'

এছাড়া ক্ষতিগ্রস্ত সেই ব্যক্তিকে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ম্যাচ খেলার আহ্বান জানিয়েছেন রোনালদো। তিনি লিখেছেন, 'হঠাৎ ক্ষিপ্ত হওয়ার জন্য আমি ক্ষমা চাই। যদি সম্ভব হয়, ফেয়ার প্লে ও স্পোর্টসম্যানশিপের নিদর্শন হিসেবে এই সমর্থককে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে একটি ম্যাচ খেলতে আমন্ত্রণ জানাতে চাই।'

জ্যাক নামের এক যুবকের ফোনটি ভেঙেছেন রোনালদো। জ্যাকের মা সারা কেলি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে রোনালদোর এমন কাণ্ড নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেন। তিনি লিখেছেন, 'খেলা শেষে রোনালদো যখন ফিরছিল, জ্যাক তার ভিডিও ধারণ করছিল। তখন তার ফোনটি আছাড় মারে রোনালদো। এটা অবিশ্বাস্য যে, একজন পেশাদার ফুটবলার কীভাবে একটা শিশুর সঙ্গে এমন আচরণ করতে পারে।'