জাতীয় দল নির্বাচক প্যানেলের এখন খুব ব্যস্ত সময়।  দল গোছাতে বাসায় ফিরেও খেলোয়াড় তালিকা নিয়ে বসতে হচ্ছে। ছয় ছয়টি দল মাথায় রেখে প্রস্তুত করতে হচ্ছে খেলোয়াড় তালিকা। জাতীয় পুলের সঙ্গে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের পারফরমাররাও রয়েছেন নির্বাচকদের ফাইলে। ছয় দলের জন্য কম করে হলেও ৫০ জন ক্রিকেটারকে বাছাই করতে হবে।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজকে অগ্রাধিকার দিয়ে গড়া হচ্ছে টেস্ট স্কোয়াড। মুমিনুল হকদের সঙ্গে ওয়ানডে এবং টি২০ ক্রিকেটারদের যোগ করে দেওয়া হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের দলে। যেখানে ২০ থেকে ২২ জন ক্রিকেটার রাখার পরিকল্পনা। জাতীয় দলের সঙ্গে ‘এ’ দলের স্কোয়াডও দেওয়া হবে ভিসা প্রক্রিয়া সেরে ফেলতে।

এইচপির ক্যাম্পও শুরু হচ্ছে ১৪ মে থেকে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের অনুমোদন পেতে এই দলগুলো দিতে হবে আজই। সেদিক থেকে দেখলে দল বানাতে গিয়ে কঠিন সময় পার করছেন নির্বাচকরা।

টেস্ট স্কোয়াড মোটামুটি ঠিক হয়েই আছে। দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের স্কোয়াড একটু এদিক করে দিলেই হয়ে গেল। পেসার শরিফুল ইসলামের খেলা হবে না। তাসকিন আহমেদকে নিয়েও আছে অনিশ্চয়তা। ইংল্যান্ডের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ডানহাতি এই ফাস্ট বোলারের কাঁধের চোট পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে ছাড়পত্র দিলেই কেবল হোম সিরিজের দলে অন্তর্ভুক্ত করা হবে।

শেষ পর্যন্ত তাকে পাওয়া না গেলে পেস বোলিং ইউনিটে কিছুটা পরিবর্তন আসবে। যদিও দেশে খেলা হওয়ার কারণে পেসারদের চেয়েও বেশি গুরুত্ব পাবেন স্পিনাররাই। তবে উইন্ডিজ সফর মাথায় রেখে পেস বোলিং ইউনিটও বড় করতে পারেন নির্বাচক প্যানেল। অ্যালান ডোনাল্ড যাতে ক্যাম্পে বোলারদের নিয়ে কাজ করতে পারেন।

ঈদের পর ৮ মে বাংলাদেশে পৌঁছাবে লঙ্কান টেস্ট দল। মুমিনুলদের ক্যাম্প শুরু হবে ৯ মে থেকে চট্টগ্রামে। জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ১৫ থেকে ১৯ মে হবে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ সিরিজের প্রথম টেস্ট। সিরিজ নির্ধারণী দ্বিতীয় টেস্ট ২৩ থেকে ২৭ মে। দ্বিপক্ষীয় এই সিরিজের আগে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই দিনের একটি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে বিসিবি একাদশ। যেখানে টেস্ট এবং ‘এ’ দলের খেলোয়াড় থাকবে।

দক্ষিণ আফ্রিকার চেয়ে এবারের টেস্ট দলটা হতে পারে সেরাদের নিয়ে। সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবালরাও খেলবেন বলে জানান নির্বাচক হাবিবুল বাশার। যুক্তরাষ্ট্রে থাকা সাকিবের মতামত জানা যায়নি রোববার পর্যন্ত। তার সঙ্গে শিগগিরই কথা বলবেন ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস। যদিও নির্বাচকরা তাকে ধরে নিয়েই স্কোয়াড বানাচ্ছেন।

প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু জানান, টেস্ট স্কোয়াড নিয়ে অধিনায়ক মুমিনুল হক এবং কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর সঙ্গে কথা বলেছেন। নির্বাচন প্রক্রিয়ায় যুক্ত রয়েছেন জালাল ইউনুস এবং টিম ডিরেক্টর খালেদ মাহমুদ সুজন। নান্নু জানান, হোম সিরিজ শেষ হওয়ার এক সপ্তাহ ব্যবধানে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিমান ধরবে জাতীয় দল। ৬ জুন টাইগারদের দেশ ছড়ার কথা। এর ছয় দিন পর ১২ জুন এন্টিগার উদ্দেশে রওনা করবে বাংলাদেশ 'এ' দল।

এই ভেন্যুতেই একটি চার দিনের ও পাঁচটি একদিনের ম্যাচ খেলবে 'এ' দল। জাতীয় দলের খেলা হবে এন্টিগা, সেন্ট লুসিয়া ও ডমিনিকায়। এইচপি ক্যাম্প চলবে লম্বা সময় ধরে। ১৫ মে থেকে ২ জুন কপবাজারে হবে ফিটনেস ও পেস বোলিং ক্যাম্প। ২ থেকে ৬ জুলাই সিলেটে হবে স্কিল ক্যাম্প। বিশেষ ক্যাম্প হওয়ায় ২৭ জন ক্রিকেটার নেওয়া হতে পারে এইচপি স্কোয়াডে।