শতশত কিশোরি ফুটবলারকে পেছনে ফেলে পর্তুগালে উন্নত প্রশিক্ষণের সুযোগ পেয়েছে চুয়াডাঙ্গার বিদিশা রানী। চুয়াডাঙ্গার হয়ে অনূর্ধ্ব-১৭ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জাতীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট নিয়ে নজরে আসে বিদিশা। দু’মাসের প্রশিক্ষণ নিতে জুলাইয়ে পর্তুগাল যাবে এই কিশোরী। 

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা শহরের রেলস্টেশন পাড়ার রাজ কুমার বেদ-এর মেয়ে বিদিশা। তার বাবা স্থানীয় হারদি এমএস জোহা ডিগ্রি কলেজের একজন অফিস সহায়ক। পাঁচ বোনের মধ্যে বিদিশা দ্বিতীয়। পড়াশুনা করছে দশম শ্রেণিতে। 

তাকে প্রথমে ক্রিকেট একাডেমিতে ভর্তি করা হয়। তবে প্রতিভা তাকে ফুটবলে টেনে নিয়ে যায়। তার বাবা তাকে চুয়াডাঙ্গার একটি ফুটবল একাডেমিতে ভর্তি করে দেন। এখন বিদিশাকে ঘিরে একাডেমিতে উচ্ছ্বাস চলছে।

অনুর্ধ-১৭ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব ফুটবল টুর্নামেন্ট থেকে দেশের ৪০ ফুটবলার ডাক পায় বিকেএসপিতে এক মাসের প্রশিক্ষনের জন্য। তাদের মধ্যে বিদিশাসহ ১৫ জন মুগ্ধ করে কোচদের।  এরপর সেরা ১১তে অষ্টম হয় এই কিশোরি।

চলতি বছরের জুলাইয়ে পর্তুগাল যাওয়ার বিষয়ে বিদিশা জানায়, প্রিয় খেলোয়াড় রোনালদোর সঙ্গে দেখা করার স্বপ্ন তার। প্রশিক্ষণে ফুটবল সম্পর্কে শিখতে চায় অনেক কিছু। বিদিশার বাবা বলেন, মেয়ে পর্তুগালে যাওয়ার সুযোগ পাওয়ায় খুশি। কখন স্বপ্নও দেখিনি ফুটবল শিখতে মেয়ে বিদেশ যাবে।

বিদিশার ফুটবল একাডেমির কোচ মিলন বিশ্বাস বলেন, তার ফুটবল ভবিষ্যৎ উজ্জ্বল। চুয়াডাঙ্গা জেলা ফুটবল এ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি ইমরান হোসাইন জানান, বঙ্গমাতা জাতীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট থেকে বিদিশা উঠে আসে। সে মেধাবি ও পরিশ্রমী। তার সফলতা অব্যাহত থাকুক।