ভারতের ফুটবল সম্পর্কে ভালো ধারণা রাফায়েল অগাস্তোর। ২০১৫ থেকে ২০২১ পর্যন্ত আইএসএলে চেন্নাইয়িন ফুটবল ক্লাব ও ব্যাঙ্গালুরু এফসির হয়ে খেলেছিলেন রাফায়েল অগাস্তো। দুটি ক্লাবের হয়ে ৭১ ম্যাচে ৫ গোল করা এ ব্রাজিলিয়ানকে নিয়ে কৌতূহল কলকাতার মিডিয়াগুলোর। এএফসি কাপ বাছাইয়ের প্লে-অফ ম্যাচে আজ আবাহনী-মোহনবাগানের মধ্যকার ম্যাচে সবার দৃষ্টি থাকবে তার দিকেই। 

কলকাতার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে অতীতে খেলেছিলেন বলেই রাফায়েলকে নিয়ে আলাদা ছক কষতে হচ্ছে মোহানবাগান কোচ হুয়ান ফেরান্দোকে। অবশ্য দুই বাংলার লড়াইয়ে মঙ্গলবার দুই দেশের কোচকে প্রতিপক্ষ দলের বিদেশি নিয়েই বেশি পরিকল্পনা করতে হচ্ছে। মোহনবাগানের চার বিদেশি ডেভিড উইলিয়ামস, রয় কৃষ্ণ, জনি কাউকো এবং হুগো ভামোস দলকে টেনে নিয়ে যাচ্ছেন। 

আবাহনীও উড়ছে বিদেশিদের ওপর ভর করেই। ব্রাজিলিয়ান রাফায়েল, ডোরিয়েলটন গোমেস, রাশিয়া বিশ্বকাপ খেলা কোস্টারিকান ফরোয়ার্ড ড্যানিয়েল কলিনড্রেস এবং ইরানের মিলাদ শেখ ঘরোয়া প্রতিযোগিতায় নিজেদের মেলে ধরেছেন। পারফরম্যান্স বিশ্নেষণ করলে দু'দলের বিদেশিরাই আজকের ম্যাচে পার্থক্য গড়ে দিতে পারেন।


দু'দলের স্থানীয় খেলোয়াড়রা বলতে গেলে সমমানের। বিদেশের ক্ষেত্রে অভিজ্ঞতায় এগিয়ে মোহনবাগানের খেলোয়াড়রা। এর মধ্যে আবাহনীর বিদেশিদের মধ্যে লিগে সর্বোচ্চ ৭ গোল করা ব্রাজিলিয়ান ডোরেয়লটন চোটের কারণে আজ নাও খেলতে পারেন। তাকে নিয়ে ঝুঁকি নিতে চায় না আবাহনী। দলটি তাকিয়ে আছে ৫ গোল করা কলিনড্রেস এবং ৬ গোল করা রাফায়েলর দিকে। রক্ষণভাগে দলটির মূল ভরসা ইরানি ডিফেন্ডার মিলাদ শেখ।

মোহনবাগানের অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের হয়ে দুই ম্যাচ খেলা ফরোয়ার্ড উইলিয়ামস আছেন দুর্দান্ত ছন্দে। দলটির হয়ে এখন পর্যন্ত ৩৭ ম্যাচে করেছেন ১০ গোল। আইএসএলে খেলা মোহনবাগানের সবচেয়ে সফল স্ট্রাইকার হলেন রয় কৃষ্ণ। ৩৪ বছর বয়সী ফিজির এ স্ট্রাইকার ৩৯ ম্যাচে করেছেন ২১ গোল। বাদশা-মিলাদদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হবে তাকে থামানো।