মোশাররফ হোসেন রুবেলের ক্যান্সারের চিকিৎসা করাতে গিয়ে একপ্রকার নিঃস্ব হয়ে গেছে তার পরিবার। বাবার অকালপ্রয়াণে অনিশ্চিত ভবিষ্যৎ রুবেলের একমাত্র ছেলে রুশদানের। সঞ্চয়হীন জীবনে ছেলের লেখাপড়ার খরচ নিয়ে হয়তো ভাবতে হবে মা ফারহানা রহমান চৈতিকে।

এই কঠিন সময়ে রুবেলের পরিবার আরও একবার ক্রিকেট-সংশ্নিষ্টদের পাশে দাঁড়ানো আশা করতেই পারে। কোনো সন্দেহ নেই, রুশদানের পাশে দাঁড়ানো লোকের অভাব হবে না। বিসিবি কর্মকর্তাদের ভালোবাসার হাত হয়তো থাকবে ছোট্ট শিশুটির মাথার ওপর ছাতা হয়ে।

ক্রিকেটারদের অভিভাবক সংস্থা রুবেলের চিকিৎসার জন্য যেমন ২৬ লাখ টাকা দিয়েছিল বিভিন্ন সময়ে। তেমনি শিশু রুশদানের লেখাপড়ার ব্যয় নির্বাহ করতে মানবিক দৃষ্টিকোণ থেকে আর্থিক অনুদানের কথা ভাববে বোর্ড।

বিসিবি ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান জালাল ইউনুসের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, 'রুবেল চলে যাওয়ার মাত্র এক দিন হলো। বিষয়টি নিয়ে বোর্ডে কথা বলার পর জানা যাবে কতটা করা সম্ভব হবে।'

ক্রিকেটারদের সংগঠন কোয়াবও বরাবরের মতো পাশে থাকতে চায়। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক দেবব্রত পাল বলেন, 'রুবেলের পরিবারের ব্যাপারে সবাই আন্তরিক। পরিবারের দিক থেকে কোনো নিবেদন থাকলে অবশ্যই দেখা হবে।'

শুধু বিসিবি বা কোয়াব নয়, ব্যক্তিগতভাবে অনেক সাবেক ক্রিকেটারই খেলোয়াড়দের পরিবারের খারাপ সময়ে পাশে দাঁড়ান। আশা করা যায়, এমন মানবিক ক্রিকেটারদের অবশ্যই পাশে পাবে রুশদান।