মুশফিকুর রহিমের সেঞ্চুরির পরই থমকে গেছে বাংলাদেশের ইনিংস। চতুর্থ দিন ৩৯ রানের লিড নিয়ে চা বিরতিতে যায় মুশিরা। বিরতির পরেই সেঞ্চুরি করে সাজঘরে ফেরেন মুশফিক। এরপর লিড বড় করতে পারেনি বাংলাদেশ। পেসার শরিফুল রিটায়ার্ড হার্ট হলে ৬৮ রানের লিড নিয়ে ইনিংস ছাড়তে হয় বাংলাদেশের। 

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ ৯ উইকেট হারিয়ে ৪৬৫ রান তুলছে। মুশফিক ১০৫ রান করে ক্যারিয়ারের অষ্টম সেঞ্চুরি করে এবং প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে পাঁচ হাজার রানের কীর্তি গড়ে আউট হয়েছেন। পরে তাইজুল ২০ রান করে ফিরতেই ইনিংস গুটিয়ে যায় বাংলাদেশের। 

এর আগে দলের হয়ে প্রথম ইনিংসে ১৩৩ রান করেন ওপেনার তামিম ইকবাল। তিনি তৃতীয় দিন ওই রান নিয়েই রিটায়ার্ড হার্ট হন। চতুর্থ দিন মাঠে নামলেও কোন রান যোগ করতে পারেননি তিনি। তার সঙ্গে প্রথম ইনিংসে ১৬২ রানের জুটি দেন ওপেনার মাহমুদুল জয়। তিনি ৫৮ রানের ইনিংস খেলেন। 

এরপর মুশি এবং লিটন দাস দুর্দান্ত এক জুটি গড়েন। দু’জনই সেঞ্চুরির পথে ছিলেন। তবে লিটন অফের বাইরের বলে কাট করতে গিয়ে ৮৮ রান করে সাজঘরে ফিরে যান। সাকিব এই ম্যাচে দলের পক্ষে ২৬ রানের ইনিংস খেলেন। 

এর আগে শ্রীলঙ্কা টস জিতে ব্যাট করে প্রথম ইনিংসে ৩৯৭ রান তোলে। অ্যাঞ্জেল ম্যাথুস খেলেন ১৯৯ রানের ইনিংস। কুশল মেন্ডিস ৫৪ রান করেন। এছাড়া দিনেশ চান্দিমাল ৬৬ রানের ইনিংস খেলেন। বাংলাদেশ দলের হয়ে প্রথম ইনিংসে নাঈম হাসান তুলে নেন ৬ উইকেট। এছাড়া ৩ উইকেট নেন সাকিব। শ্রীলঙ্কার হয়ে কাসুন রাজিথা ৪টি এবং অসিথ ফার্নান্দো তিন উইকেট নেন।