চট্টগ্রাম টেস্টের তৃতীয় দিন প্রচণ্ড গরম ঠেলে ব্যাটিং করেছেন মুশফিকুর রহিম। চতুর্থ দিন সকালে বৃষ্টির পর ব্যাটিং করেছেন। দুপুরের রোদে উইকেটে পড়ে থেকেছেন। ধৈর্যর পরীক্ষা দিয়েছেন। ধীরে রান করেছেন। সেঞ্চুরি করেছেন মাত্র চারটি চার মেরে। কিন্তু সেঞ্চুরির পরেই সুইপ খেলে বোল্ড হয়েছেন দেশের পক্ষে টেস্টে প্রথম পাঁচ হাজার রান করা মুশফিক। 

তার সুইপ-রিভার্স, সুইপ নিয়ে আগেও অনেক প্রশ্ন উঠেছে। মুশফিক তাই ভেবেছিলেন সংবাদ সম্মেলনে সুইপ খেলা নিয়েই প্রথম প্রশ্ন হবে, “আমি ভেবেছিলাম সুইচ খেলে আউট হলেন”, এটাই হবে প্রথম প্রশ্ন (হাসি)। উইকেট ভালো ছিল। তবে সোজা ব্যাটে বা অন্য শট খেলা কঠিন ছিল। হ্যা, সুইপ ঝুঁকির শট। কিন্তু আমি চিন্তিত নই। আমার ডাবল সেঞ্চুরি দুটো দেখলেই বুঝবেন সেখানেও আমি রিভার্স সুইপ খেলেছি।’ 

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে প্রথম ইনিংসে ৬৮ রানের লিড নেয় বাংলাদেশ। ব্যাট করতে নেমে ২৯ রানে পিছিয়ে থেকে ২ উইকেট হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। জয়ের আশা নিয়ে শেষ দিন নামবে বাংলাদেশ। মুশি জানান, তাদের পরিকল্পা ছিল আরও বড় লিড নেওয়ার। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেটা না পারায় কিছুটা হতাশ, ‘প্রথম দুই দিনও প্রচণ্ড গরম ছিল। প্রথমে লক্ষ্য ছিল ওদের রানের কাছাকাছি যাওয়া। এরপর বড় লিড নেওয়া। সেটা সম্ভভ হয়নি।’ 

মুশফিক জানিয়েছেন, লঙ্কানদের বিপক্ষে রান করা সহজ নয়। অনেক বছর ধরেই একটা প্রসেস ধরে ভালো বোলিং করছে তারা। দেশের সিনিয়র ব্যাটারের মতে, অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড বেশি মাত্রায় আক্রমণ করে উইকেট তুলে নেওয়ার চেষ্টা করে। শ্রীলঙ্কা চেষ্টা করে রান চেক দিয়ে চাপ তৈরি করার। যাতে ব্যাটাররা ভুল করতে বাধ্য হয়। 

টেস্টে মুশি পাঁচ হাজার রান করে এবং সেঞ্চুরি করে বাধ ভাঙা উদযাপন করেছেন। উদযাপনের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘কষ্ট করে রান করেছি, সেঞ্চুরি করেছি উদযাপন করবো না?’ এছাড়া আগে পাঁচ হাজার রান করায় তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম। তবে তামিমের আগে হলেই ভালো লাগতো বলে উল্লেখ করেন তিনি, ‘অনেক সময় বন্ধু, সতীর্থ, ভাইয়ের কৃতিত্ব অন্যরকম অনুভূতি দেই।’