টেক্সাসের দক্ষিণে উভালডে এলাকায় রব এলিমেন্টারি স্কুলে আক্রমণ শুরু করার কয়েক মিনিট আগে ওই বন্দুকধারী জার্মানিতে থাকা এক মেয়েকে মোবাইলে হামলার পারিকল্পনা সম্পর্কে খুদে বার্তা পাঠিয়েছিল। ওই মেয়ে জামার্নির ফ্রাঙ্কফুটে থাকেন। 

যুক্তরাষ্ট্রের সংবাদমাধ্যম সিএনএন বলেছে, ওই বন্দুকধারী মেয়েটিকে খুদে বার্তায় জানায়, তার দাদির সঙ্গে মোবাইল বিল সংক্রান্ত বিষয়ে ঝামেলা হয়েছে। এতে সে ক্ষুব্ধ বলেও মেয়েটিকে জানায়। সিএনএন বলছে, তারা ওই খুদে বার্তার স্ক্রিনশটগুলো পর্যবেক্ষণ করছে। 

সংবাদমাধ্যমটি জানায়, মোবাইল বিল নিয়ে কথা বলায় দাদির ওপর তার রাগ হয়েছে জানানোর ছয় মিনিট পরে মেয়েটিকে আরেকটি খুদে বার্তা পাঠায় বন্দুকধারী। সেখানে সে লিখে, এই মাত্র আমি দাদির মাথায় গুলি করেছি। 

এর কয়েক সেকেন্ড পরের খুদে বার্তায় সে লিখে, এই মুহূর্তে আমি একটি এলিমেন্টারি স্কুল বন্ধ করতে যাচ্ছি। সন্দেহভাজন ওই বন্দুকধারীর সর্বশেষ খুদে বার্তা ছিল টেক্সাস সময় ১১টা ২১মিনিটে। যেখানে সে লিখেছিল, ১১ মিনিট আগে স্কুলে গুলি শুরু হয়েছে। 

মেয়েটি সিএনএনকে জানিয়েছে, সে প্রায়ই ছেলেটির সঙ্গে ভিডিওকল সার্ভিস ফেসটাইমে কথা বলতো। এ ছাড়া তারা ইউবো নামে লাইভস্ট্রিমিং অ্যাপ এবং গেমিং অ্যাপ প্লাটোর মাধ্যমে যোগাযোগ করতো। 

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সূত্র সিবিএস নিউজকে বলেছে, প্রাথমিক তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে মনে হচ্ছে মোবাইল ফোন বিল নিয়ে তর্কাতর্কির পর দাদির চেহারায় গুলি করে সে। 

প্রসঙ্গত, যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের দক্ষিণে উভালডে এলাকায় মঙ্গলবার রব এলিমেন্টারি স্কুলে এক বন্দুকধারীর গুলিতে ১৯ শিক্ষার্থীসহ ২১ জন নিহত হয়েছে। নিহত শিশু শিক্ষার্থীদের বয়স ৭ থেকে ১০ বছর। এই ঘটনায় সন্দেহভাজন বন্দুকধারীও নিহত হয়েছে। তার নাম সালভাদর রামোস।