পাকিস্তান তেহেরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করতে পাকিস্তান সরকারকে ছয় দিন সময় দিয়েছেন। তা না করলে ‘পুরো জাাতি’ রাজধানীতে ফিরে আসবে বলে আলটিমেটাম দেন। 

ইসলামাবাদের জিন্নাহ অ্যাভিনিউতে অনুষ্ঠিত ‘আজাদি মার্চ’-এ জনতার উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে তিনি এই আলটিমেটাম দেন। বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম জিওটিভি অনলাইন এবং দি এক্সপ্রেস ট্রিবিউন এই খবর প্রকাশ করেছে।

খাইবার পাখতুনখাওয়া থেকে ইসলামাবাদে পৌঁছাতে ৩০ ঘণ্টা সময় লেগেছে জানিয়ে জনসভায় ইমরান খান বলেন, সরকার আমাদের আজাদি মার্চ ভন্ডুল করার জন্য সম্ভব সব ধরনের কৌশল প্রয়োগ করেছে। তারা শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে কাঁদানে গ্যাস ছুড়েছে। আমাদের বাড়িতে তল্লাশি চালানো হয়েছে এবং বাড়ির প্রাইভেসি লঙ্ঘন করেছে। তবে আমি জাতিকে দাসত্বের ভয় থেকে মুক্ত হতে দেখেছি।

ইমরান খান বলেন, করাচিতে তিন পিটিআই কর্মী প্রাণ হারিয়েছেন। দুই কর্মীকে রাবি ব্রিজ থেকে নিচে ফেলে দেওয়া হয়েছে এবং হাজার হাজার কর্মীকে আটক করা হয়েছে। 

সরকারকে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার সময় বেঁধে দিয়ে তিনি বলেন, আমি সরকারকে ছয় দিন সময় দিচ্ছি পার্লামেন্ট ভাঙতে এবং জুনে সাধারণ নির্বাচন ঘোষণা করতে। 

ইমরান খান বলেন, এই আমদানি করা সরকারের জন্য আমার বার্তা হলো পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে নির্বাচন ঘোষণা করা। অন্যথায় আগামী ছয় দিন পর আমি পুনরায় ইসলামাবাদ ফিরে আসবো। 

এদিকে সরকারকে আলটিমেটাম দিয়ে ইমরান খান বানি গালায় যান। তবে পিটিআই সমর্থকরা সমাবেশস্থল ইসলামাবাদের ডি-চকেই ছিলেন। পরে বুধবার রাতে অধিকাংশ পিটিআই সমর্থক ইসলামাবাদের প্রবেশনিষিদ্ধ রেড জোনো ঢুকে পড়েন। এই এলাকায় সুপ্রিম কোর্ট, প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন এবং মার্কিন দূতাবাসসহ বেশ কয়েকটি অতিগুরুত্বপূর্ণ ভবন রয়েছে।

অন্যদিকে পিটিআই কর্মীদের রেড জোনে প্রবেশের প্রতিক্রিয়ায় দেশটির তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী মরিয়ম আওরঙ্গজেব জিওনিউজকে বলেছেন, রেড জোন নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় রয়েছে। সরকার জনগণ এবং সংবেদনশীল ভবনগুলোর নিরাপত্তা নিশ্চিত করবে।