'জাতীয় দল নিয়ে আপনার প্রত্যাশা'- টুর্নামেন্ট সামনে এলে বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিনের কাছে এ প্রশ্নটা যাবেই। এশিয়ান কাপ বাছাই খেলতে যাওয়ার আগে গতকাল কিংস অ্যারেনায় জাতীয় দলের অনুশীলন দেখতে যাওয়া বাফুফে সভাপতিকে নতুন করে শুনতে হয়েছে পুরোনো প্রশ্নটি। উত্তরটি আগের মতোই, 'আমার কাজ ফুটবলারদের জন্য সব সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করা। একজন প্রেসিডেন্ট হিসেবে আমি খেলার ভেন্যু দিতে পারি, আমি হোটেল দিতে পারি, কোচ দিতে পারি। আমি খেলোয়াড়দের ১০ দিন আগে বিদেশে পাঠাতে পারব। কিন্তু আমি মাঠে ফুটবল খেলতে পারব না। এটা প্লেয়ারদের করতে হবে। প্লেয়ারদের জন্য সব ফ্যাসিলিটি, সেরা ট্রেনিং গ্রাউন্ড, সেরা হোটেলের সুবিধা আমি দিতে পারি। আমি তাদের বলেছি বাকিটা হলো তোমাদের কাজ।'

এএফসি কাপ শেষে ঢাকায় ফিরেই কিংস অ্যারেনায় চলে আসেন জাতীয় দলে ডাক পাওয়া বসুন্ধরা কিংসের ফুটবলাররা। বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন অনুশীলন দেখতে গতকাল কিংস অ্যারেনায় যান। সেখানে বসুন্ধরার খেলোয়াড়দের সঙ্গে কিছু সময় কথা বলেন। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়ার সঙ্গেও হাস্যরসে মেতে ওঠেন সালাউদ্দিন। গ্যালারির এক পাশে বসে বাংলাদেশ দলের অনুশীলনও দেখেন তিনি। নতুন কোচ হ্যাভিয়ের ক্যাবরেরার কোচিং দর্শন মনোযোগ সহকারে দেখেন বাফুফে সভাপতি। 

স্প্যানিশ কোচের অনুশীলনে যে মুগ্ধ, সেটা সাংবাদিকদের সঙ্গেও বলেছেন তিনি, 'সর্বশেষ কোচের সঙ্গে এই কোচের (ক্যাবরেরা) মধ্যে পার্থক্য হলো তিনি শতভাগ দেওয়ার চেষ্টা করেন। তিনি সব লিগের খেলা দেখেন, তিনি দল নির্বাচনে কারও ওপর নির্ভরশীল নন। তিনি খেলা দেখেছেন বলেই কিন্তু নিজের সিদ্ধান্ত মতো দল নির্বাচন করছেন। আমি আগের কোচদের মধ্যে এই কোয়ালিটি পাইনি। আমি যাকে পেয়েছি, তিনি এমন একজন যে কিনা ২৪ ঘণ্টাই কাজের মধ্যে থাকেন। আমার কাছে অনুশীলন দেখে ভালো লেগেছে।'

৮ জুন মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে শুরু হবে এশিয়ান কাপ বাছাইপর্বের খেলা। তার আগে ১ জুন ইন্দোনেশিয়ায় গিয়ে প্রীতি ফুটবল ম্যাচ খেলবে লাল-সবুজের দলটি। আজ রাতেই জাকার্তার উদ্দেশে দেশ ছাড়ার কথা ফুটবল দলের। বাছাইপর্বে গ্রুপ 'ই'-তে বাংলাদেশ খেলবে বাহরাইন, তুর্কমেনিস্তান এবং স্বাগতিক মালয়েশিয়ার বিপক্ষে। 

৮ জুন বাহরাইনের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলবেন বিশ্বনাথ ঘোষ-বিপলুরা। এএফসি কাপ খেলে বুধবার ঢাকায় ফেরা কিংসের ফুটবলাররা বৃহস্পতিবার দলের সঙ্গে ইন্দোনেশিয়ায় যাবেন কিনা, তা এখনও নিশ্চিত নয়। কারণ, দলের চার ফুটবলার-ফরোয়ার্ড মতিন মিয়া, সুমন রেজা, মিডফিল্ডার মাশুক মিয়া জনি ও ডিফেন্ডার তারিক কাজী ইনজুরিতে আছেন। ইতোমধ্যে অনুশীলনের সময় চোটে পড়ে দল থেকে ছিটকে গেছেন হেমন্ত ভিনসেন্ট বিশ্বাস ও সাদ উদ্দিন। ক্যাম্প শুরুর আগে চোটে পড়েন গোলরক্ষক শহীদুল আলম সোহেল। সবমিলিয়ে বড় আসরের আগে ক্যাবরেরার দুশ্চিন্তা এখন ফুটবলারদের ইনজুরি।