আরও একবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। লিভারপুলকে হারিয়ে ঘরে তুলেছে ইউরোপ সেরার ১৪তম শিরোপা। ভিনিসিয়ুস জুনিয়র ম্যাচের ৬০ মিনিটে গোল করে এবং থিবো কর্তোয়া পুরো ম্যাচে অসাধারণ কিছু সেভ করে দলকে জয় এনে দিয়েছেন। 

রিয়ালের শিরোপা উৎসবের মধ্যেও আছে গোল ও অফসাইড বিতর্ক। প্রথমার্ধের ৪৪ মিনিটে রিয়াল মাদ্রিদ একমাত্র গোলের সুযোগ তৈরি করে। কমির বেনজেমা জালে বলও জড়িয়ে দেন। কিন্তু ভিএআর চেক করে গোলটি অফসাইডের কারণে বাতিল করা হয়। 

ওই গোলটি অফসাইডে ছিল কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন আছে। অফসাইড রুলসে আছে- প্রতিপক্ষের ফুটবলার যদি বল ছাড়া গোলরক্ষকের পিছনে থাকেন তাহলে তিনি অফসাইড হবেন। তবে গোলরক্ষকের পেছনে যদি নিজ দলের খেলোয়াড় থাকেন সেক্ষেত্রে ইমিডিয়েট বা একদম পেছনে যিনি থাকবেন তাকে গণ্য করে অফসাইড ডাকা হবে। 

নিয়মের ওই ক্লজ অনুযায়ী, করিম বেনজেমা অফসাইড। কারণ রেডস গোলরক্ষক অ্যালিসনের পেছনে ছিলেন ভ্যান ডাইক। তার নিচে ছিলেন ফ্রান্সম্যান করিম। কিন্তু ভ্যান ডাইকের পেছনে থাকা ফ্যাবিনহোকে    গণ্য করা না হলেও তিনি ফেদে ভালভার্দে এবং বেনজেমার শট ফেরানোর চেষ্টা করেছেন। 

ওই শর্তে বেনজেমা অফসাইড ছিলেন কিনা ওই প্রশ্ন থেকে যাচ্ছে। প্রশ্ন তুলছেন ফুটবল বিশ্লেষকরা। এক পক্ষের মতো ফ্যাবিনহো শট ঠেকানোর চেষ্টা করেছেন কিনা তা মূখ্য নয়। বেনজেমার ডিফেন্ডার ভ্যান ডাইকের নিচে থাকায় মূখ্য। অন্য পক্ষ বিষয়টি মানতে নারাজ। ম্যাচের ফল হয়ে গেলেও সোস্যাল মিডিয়ায় বিতর্কের উত্তর-প্রতিউত্তর চলছে।