চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালের মধ্য দিয়ে ইউরোপের শীর্ষ লিগের মৌসুম শেষ হয়েছে। লিভারপুলকে হারিয়ে রিয়াল মাদ্রিদ চ্যাম্পিয়ন্স লিগের রেকর্ড ১৪তম চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। মৌসুমে লস ব্লঙ্কোসরা জিতেছে ত্রিমুকুট। তারপরও রিয়ালের সাদা জার্সিতে লেগে আছে ছোট্ট একটি দাগ। 

চলতি মৌসুমে রিয়াল প্রথম স্বাদ পায় সুপার কোপা দ্য স্পানার। সেমিফাইনালে বার্সেলোনা এবং ফাইনালে অ্যাথলেটিকো বিলবাওকে হারিয়ে শিরোপা ঘরে তোলে কার্লো আনচেলত্তির দল। এরপর লা লিগা শিরোপা জিতেছে খুবই সহজে। 

লিগ ম্যাচে বার্সার বিপক্ষে বিধ্বস্ত হয়েছিল রিয়াল। ছবি: ফাইল 

দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা বার্সেলোনার চেয়ে ১৩ পয়েন্টে এগিয়ে থেকে লিগ জিতেছে লস ব্লাঙ্কোসরা। চার ম্যাচ হাতে থাকতে লিগ জয়ের স্বাদ পায় মাদ্রিদের ক্লাবটি। এবার রেডসদের হারিয়ে জিতলো ইউরোপ সেরার ট্রফি। তার আগে পিএসজি, চেলসি, ম্যানসিটির মতো বাঘা বাঘা ক্লাবকে বিদায় করতে হয়েছে আনচেলত্তির। 

দুর্দান্ত এক মৌসুম কাটানোর পথে রিয়ালের একমাত্র অতৃপ্তি লিগের দ্বিতীয় এল ক্লাসিকোয় বার্সেলোনার বিপক্ষে হার। শুধু হার নয় রীতিময় বিধ্বস্ত হওয়া। গত মার্চে জাভি ও তার তরুণ শিষ্যরা সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে গিয়ে ব্লাঙ্কোসদের ৪-০ গোলে বিধ্বস্ত করে এসেছিল। লজ্জার ওই হারের পর রিয়াল কোচ আনচেলত্তির ডাক পড়ে ক্লাব প্রেসিডেন্ট পেরেজের কক্ষে। 

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের পর বেনজেমার মূর্তি বানিয়ে ভক্তদের উল্লাস। ছবি: এএফপি

অভিজ্ঞ কোচ আনচেলত্তি তখন পেরেজকে ভরসা দিয়েছিলেন। আত্মবিশ্বাস নিয়ে বলেছিলেন, চিন্তার কিছু নেই, এই মৌসুমে রিয়াল লিগও জিতবে, চ্যাম্পিয়ন্স লিগও জিতবে, ‘রিল্যাক্স পেরেসি, আমরা লা লিগা এবং চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিততে যাচ্ছি।’ আনচেলত্তি কথা রাখলেও বার্সার বিপক্ষে ওই হার পরবর্তী ক্লাসিকে না জেতা পর্যন্ত কাঁটার মতোই ফুটবে ভক্তদের গায়ে।