লর্ডস টেস্টের প্রথম দিন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আগুন ঝরা বোলিং করেছে ইংল্যান্ড। অভিষেকে দুর্দান্ত বোলিং করে চার উইকেট তুলে নিয়েছেন ম্যাথু পট। ৪০ ওভারে কিউইদের ধসিয়ে দেওয়ার মধ্যে ৩৮তম ওভারে পট সামান্য ইনজুরিতে পড়েন। তার বদলে মাঠে নামেন রবিন দাস নামের ২০ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণ। 

রবিনকে চিনতে পারার কথা নয়। তিনি ইংলিশ ব্যাটার। তবে স্বীকৃতি টি-২০ খেলেছেন মাত্র একটি। এক্সেসের কাউন্টি দলের চেনা মুখ। এক্সেস সেকেন্ড এলিভেনের হয়ে বেশ কিছু ম্যাচ খেলেছেন। নাম-নম্বরহীন ইংল্যান্ডের জার্সি পরে তিনি মাঠে নামেন ফিল্ডিং করার জন্য। 

লর্ডস টেস্টে টুুয়েলভ ম্যান হিসেবে সুযোগ পাওয়া দু’জনকে (ডানে রবিন) শুভকামনা জানিয়েছে এক্সেস। ছবি: টুইটার

কারণ লর্ডস টেস্টে রবিন এবং নিখিল গোরেন্টলাকে দলের মূল ক্রিকেটারদের বাইরে  দ্বাদশ ক্রিকেটার হিসেবে রাখা হয়েছিল। এর মধ্যে মাঠে নামার সুযোগ পাওয়া রবিন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক। কাউন্টি দলে তিনি জায়গা পেয়েছেন ব্যাটার হিসেবে। 

তার জন্ম ইংল্যান্ডে। তবে বাবার জন্ম বাংলাদেশের সুনামগঞ্জে। ২০০২ সালে লেটোনস্টোনে জন্ম তার।  বাবার নাম মৃদুল দাস। রবিন ২০২০ সালের বঙ্গবন্ধু টি-২০’র খেলোয়াড় ড্রাফটে জায়গা পেয়েছিলেন। তবে দল পাননি। 

তিনি ২০১৮ সালে এসেক্স অনূর্ধ্ব-১৬ দলের হয়ে দ্বিশতক করেছিলেন। ২০১৯ সালে এই তরুণ এসেক্সের ‘একাডেমি প্লেয়ার অব দ্য ইয়ার’ সম্মাননা পেয়েছেন। ইংল্যান্ড দলের টুয়েলভ ম্যান হওয়া তরুণের ইংলিশ ক্রিকেটে উজ্জ্বল ভবিষ্যতের আভাস মিলছে।