‘বিশ্বের সব দেশের পাশাপাশি বিশেষ করে ভারতসহ প্রতিবেশীদের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক চায়’ ইসলামিক আমিরাত।

দেশটির ভারপ্রাপ্ত প্রতিরক্ষামন্ত্রী মোল্লা মুহাম্মদ ইয়াকুব মুজাহিদ ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল সিএনএন নিউজ ১৮কে এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেন। খবর টোলো নিউজের।

প্রথমবারের মতো মোল্লা ইয়াকুব টেলিভিশনের সংবাদ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন। এ সময় তিনি কথা বলেন নারী শিক্ষা ও বিশ্বের সঙ্গে কাবুলের সম্পর্ক নিয়েও।

মোল্লা ইয়াকুব বলেন, আমরা, ইনশাআল্লাহ, বিশ্বের সব দেশের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক চাই। ভারত বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখার ক্ষেত্রে সুপরিচিত একটি দেশ।  আফগানরা ভারতের সাথে বন্ধুত্ব করে এবং তাদের বন্ধুত্ব সৌহার্দ্যপূর্ণ, বিশ্বাস ও সততার ভিত্তিতে।

এদিকে বৃহস্পতিবার দিল্লির একটি উচ্চ পর্যায়ের প্রতিনিধি দল কাবুলে এসেছে। তারা ইসলামিক আমিরাতের গুরুত্বপূর্ণ কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাৎও করেছেন। দেশটিতে তালেবান ক্ষমতায় আসার পর থেকে এ প্রথম ভারতের প্রতিনিধি দল সেখানে গেল।

রাজনৈতিক বিশ্লেষক তুরেক ফারহাদি বলেন, পাকিস্তানে ইমরান খানের পতনের মাধ্যমে শাহবাজ শরীফ প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার পর ভারত সক্রিয় হয়। ভারত মনে করে, শাহবাজের সরকার কাবুলকে তেমন একটা সমর্থন দেয় না।

বিশ্লেষক ওয়ালি ফ্রোজান বলেন, আফগানিস্তানের মানুষের হৃদয়ে রয়েছে ভারত। তারা মানবিক সহায়তা প্রদান এবং পাকিস্তানের প্রভাব রোধ করে আফগানিস্তানে তার প্রভাব অর্জন করতে পারে।

সাক্ষাৎকারে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বা অন্য কোনো দেশের বিরুদ্ধে আমাদের মাটি ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না।

নারী শিক্ষার বিষয়ে তিনি বলেন, আফগানিস্তানে ‘শিক্ষা বন্ধ করার’ কোনো আদেশ দেওয়া হয়নি।

‘আমি বলতে চাই, শিক্ষা বন্ধ করা নিয়ে ইসলামিক আমিরাতের ঘোষণা সংক্রান্ত বিষয়ে বিশ্ব উদ্বিগ্ন। কিন্তু শিক্ষা বন্ধ করা নিয়ে আমাদের দেশে কোনো আদেশ নেই।

যুক্তরাষ্ট্র সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়ার মধ্যে গত বছরের ১৫ আগস্ট কাবুল নিয়ন্ত্রণে নেয় তালেবান। এর পর সরকার গঠন করে গোষ্ঠীটি। যদিও এখনও কোনো দেশ এ সরকারকে স্বীকৃতি দেয়নি।